Website Speed: রকেট গতিতে ওয়েবসাইটের স্পীড বৃদ্ধি করুন

ওয়েবসাইটের লোডিং স্পীড ( Website Speed ) বৃদ্ধি কিভাবে করতে হয়? এবং কি কি বিষয়ের উপর এটি নির্ভর করে তা অনেকেই জানেন না। যদি আপনি অনলাইনে বিজনেস করেন, তাহলে আপনাকে অবশ্যই ওয়েবসাইটের লোডিং স্পীড নিয়ে সতর্ক থাকতে হবে। কেননা, আপনার ওয়েবসাইটের লোডিং স্পিড ভালো হওয়ার মানে হচ্ছে আপনার বিজনেস ভালো চলছে।

  • আপনি কি জানেন যে, শুধুমাত্র আপনার Website Speed কম হওয়ার জন্যই যে প্রতিদিন আপনার ব্যাবসার কি পরিমাণ ক্ষতি হচ্ছে?
  • আপনার ব্যবসার ক্ষতির পরিমাণ কি ভেবে দেখেছেন?
( Website Speed ) রকেট-গতিতে-ওয়েবসাইটের-লোডিং-স্পীড-বৃদ্ধি-করুন-2
( Website Speed ) Image source: Pixabay

 বিশেষ করে আপনাদের যাদের ব্যাবসা শুধুমাত্র অনলাইন ভিত্তিক ই-কমার্স ওয়েবসাইটের উপর নির্ভর করে। তাদের কথা তো বলার অপেক্ষাই রাখে না।

ওয়েবসাইটের লোডিং স্পীড ( Website Speed ) নিয়মিত চেক করেন?

অনলাইনে যদি ব্যবসা করে থাকেন, তাহলে নিয়মিত আপনার সাইটের লোডিং স্পিড যাচাই করা আবশ্যক। বলা হয় কচ্ছপ গতির লোডিং স্পিডের জন্যই অনলাইনে ৬০% কাস্টমার হারিয়ে যায়।

আপনি কি ৬০% কাস্টমারদের অবহেলা করছেন?

যদি অবহেলা করে থাকেন, তাহলে বলতে পারি। নিশ্চিত আপনি একজন প্রফেশনাল উদ্যোক্তা নয়। আপনি যদি একজন প্রফেশনাল উদ্যোক্তা হোন, তাহলে আপনার উচিত ওয়েবসাইটের লোডিং স্পিড ( Website Speed ) নিয়ে প্রতিদিন সময় দেয়া।

জেনে নেওয়া যাক:

কি কি কারনে ওয়েবসাইটের লোডিং স্পীড ( Website Speed ) কম হয়:

  • কম টাকায় নিম্নমানের কচ্ছপ গতির হোস্টিং ব্যবহার করা
  • ওয়েবসাইটের সকাল প্রয়োজনীয় সেটিংস ঠিক ভাবে কনফিগার না করা
  • সাইটের ছবিগুলো অপটিমাইজ না করা
  • ভিডিও যুক্ত করা বা আপলোড করা
  • প্রযোজনের থেকে বেশি প্লাগিনস ইনস্টল করা
  • স্ক্রিপ্টের সমস্যা ইত্যাদি।

Website Speed বৃদ্ধির জন্য সমাধান:

এখন আমরা জেনে নিব কিভাবে আমরা আমাদের ওয়েবসাইটের স্পিড বৃদ্ধি করতে পারি? এই সম্পর্কিত যতগুলো কৌশল রয়েছে। এই সম্পর্কিত কৌশলগুলোর সংক্ষিপ্ত আলোচনা আমরা এ আর্টিকেলে দিতে চেষ্টা করব। আমরা সব সময় আমাদের ইউজারদের কে বলে থাকি, আপনারা অবশ্যই অবশ্যই ওয়েবসাইটে মনোযোগী হোন। আপনার ওয়েবসাইট স্পিড আপনার বিজনেস  লাভবান করতে পারে।

নিম্নমানের কচ্ছপ গতির হোস্টিং ব্যবহার পরিহার করুন:

ওয়েবসাইটের মূল উপাদানের মধ্যে একটা ভালো মানের হোস্টিং ছাড়া আর কিছুই নাই। যদি আপনার ওয়েবসাইটের হোস্টিং টাই ভালো না হয়, তাহলে কখনো আপনার ওয়েবসাইটের লোডিং স্পীড ভাল পাবেন না। যারা অভিজ্ঞ রয়েছে, তারা সব সময় আপনাকে আপনার ওয়েবসাইটের হোস্টিং ভালো মানের ব্যবহার করার পরামর্শ দিতে থাকবে।

সত্যি বলতে একটি ভালো মানের কোম্পানির হোস্টিং ব্যবহার করা ছাড়া আর কোনো উপায় নাই আপনার ওয়েবসাইটের স্পিড বৃদ্ধি করার জন্য। একটি স্বনামধন্য কোম্পানির ডোমেইন-হোস্টিং ব্যবহার করা আপনার জন্য মৌলিক বিষয়। তবে এর পাশাপাশি আপনার ওয়েবসাইটের ইউজার এক্সপেরিয়েন্স বৃদ্ধি করার জন্য। কিভাবে লোডিং স্পীড বৃদ্ধি করবেন? এই বিষয়ে আমরা আরো কিছু বিস্তারিত আলোচনা করব আপনাদের সাথে।

সেরা ও শক্তিশালী কিছু হোস্টিং কোম্পানির লিংক দেওয়া হয়েছে:

  • HostGator
  • Bluehost
  • Namecheap

উন্নত মানের ওয়েবসাইটের থিম ব্যবহার করুন:

আমরা যারা ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েব সাইটের মাধ্যমে বিজনেস করে থাকি, বা ব্লগিং করে থাকি অথবা  অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং নিয়ে বিজনেস করি, তাদের জন্য একটা রেস্পন্সিভ ও ভালো মানের থিম ব্যবহার করা প্রয়োজন। যারা নতুন অনলাইনে তাদের বিজনেস শুরু করে তারা এই ভুলটি সব সময় করে থাকে খুব কম টাকার মাধ্যমে একটা থিম ব্যবহার করার। তবে এক্ষেত্রে আমরা পরামর্শ দিব আপনি কোন ডেভলপার এর মাধ্যমে আপনার ওয়েবসাইটের জন্য একটা রেস্পন্সিভ থিম ডিজাইন করেন। অথবা অন্যকোন  উন্নত মানের মার্কেটপ্লেস থেকে একটি অ্যাডভান্স লেভেলের ডিজাইন করা উন্নত মানের থিম ক্রয় করে নেন।

অধিকাংশ ফ্রি থিম ব্যবহারের ক্ষেত্রে আপনার ওয়েবসাইটের যে কোডগুলো রয়েছে। সেগুলো সঠিকভাবে অপটিমাইজ করা না থাকার কারণে দ্রুত কাজ করে না। আবার অনেকেই ক্র্যাক ভার্সন বিভিন্ন থার্ড পার্টি ওয়েবসাইট এর কাছ থেকে সংগ্রহ করে। এক্ষেত্রে অবশ্যই আপনাদেরকে সতর্ক করে রাখছি। যদি আপনি এ ধরনের কোন থিম ব্যবহার করে থাকেন, তাহলে আপনার ওয়েবসাইট যেকোনো সময়ই হ্যাক হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এমনকি আপনার পরিপূর্ণ ওয়েবসাইটের ডাটা গুলো হারিয়ে ফেলার সম্ভাবনা থাকে। 

সুতরাং এ ধরনের সমস্যা গুলো এড়িয়ে চলার জন্য আপনাকে একটি উন্নত মানের ভালো ক্রিম ব্যবহার করতে হবে। শক্তিশালী হোস্টিং ও একটি ভালো মানের থিম  আপনার ওয়েবসাইট এর গতি বৃদ্ধি করতে 80% পার্সেন্ট এরও বেশি ভূমিকা রাখে।

ভালো মানের একটি সিম ক্রয় করার জন্য থিমফরেস্ট হচ্ছে সেরা একটি কোম্পানি –

Themeforest (Best WordPress Theme Company)

ছবিগুলো অপটিমাইজ করুন:

সাইটের লোডিং স্পীড  বাড়ানোর জন্য আপলোডকৃত ছবিগুলো অপটিমাইজ করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আপনি যদি  ওয়ার্ডপ্রেস ইউজার হয়ে থাকেন, তাহলে বিভিন্ন থার্ড পার্টি প্লাগিন্স এর মাধ্যমে আপনার ওয়েবসাইটের ইমেজ গুলো খুব সহজেই অপটিমাইজ করতে পারবেন।  ইমেজ অফ করার জন্য একটি প্রিমিয়াম হচ্ছে wp-rocket. এই প্লাগিনটি খুবই জনপ্রিয় এবং শক্তিশালী একটি প্লাগিন।

 যদি আপনি ওয়ার্ডপ্রেস ছাড়া অন্য কোন সিএমএস ব্যবহার করে আপনার ওয়েবসাইট পরিচালনা করে থাকেন। তাহলে পার্টি বিভিন্ন টুলের মাধ্যমে আপনার ওয়েবসাইটের ইমেজ গুলোকে অপটিমাইজ করার সুযোগ রয়েছে।

আপনি কি অনলাইনে বিজনেস করেন?

বিডি ব্লগ ডট কম বাংলাদেশের সেরা একটি বাংলা ব্লগ ওয়েবসাইট। এখানে আমি আউটসোর্সিং ফ্রিল্যান্সিং এবং নতুন অনলাইন উদ্যোক্তাদের জন্য বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করে যাচ্ছি। আপনার অনলাইন বিজনেস কিভাবে বৃদ্ধি করতে পারেন, এবং অনলাইন থেকে কিভাবে আয় করতে পারেন সে বিষয়ে জানার জন্য বিডি ব্লগ ডট কম এর অন্যান্য লেখা গুলো পড়ুন।

bd blog writer

একজন ইলেক্ট্রিক্যাল বিষয়ে ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে সবসময় টেকনোলজি কে অগ্রাধিকার দিতে ভালোবাসি। প্রযুক্তির সাথে এগিয়ে যেতে ও নিজেকে সবসময় আপডেট রাখার জন্য নিয়মিত প্রযুক্তিগত জ্ঞান নিজে অর্জনের পাশাপাশি অন্যদের সাথে শেয়ার করাতে ভালো লাগে। সময় পেলে প্রযুক্তি, ব্যবসা, মার্কেটিং বিষয়ে লিখতে চেষ্টা করি। পেশা যাই হোক, তা হতে লাভবান হতে চাইলে ব্যবসা ও মার্কেটিং জ্ঞান আবশ্যক।

কমেনট বাক্সে আপনার মতামত লিখে জানান