ইন্টারনেট স্পিড টেস্ট করার নিয়ম ও কিছু Internet Speed Test টুলস

আমরা অনেকেই জানি না ইন্টারনেটের স্পিড টেস্ট করা যায়। যারা ইন্টারনেট স্পিড টেস্ট করতে জানিনা, তাদেরকে অনেক ইন্টারনেট সেবা প্রদানকারী অপারেটর ঠকিয়ে ফেলে। যেমন আপনি যদি কারো কাছ থেকে ওয়াইফাই এর কানেকশন গ্রহণ করে থাকেন, অথবা ব্রডব্যান্ড কানেকশন গ্রহণ করে থাকেন। এক্ষেত্রে তারা আপনাকে একেক ধরনের আকর্ষণীয় ও লোভনীয় অফার সেন্ড করে।

যেমন: অনেকেই ২০ এমবিপিএস ইন্টারনেট ২ হাজার টাকা বা ১ হাজার টাকা দিয়ে আপনাকে দিয়ে থাকে। কিন্তু আসলে কি তারা ২০ এমবিপিএস ইন্টারনেট আপনাকে সরবরাহ করছে কিনা। সেটি পরীক্ষা করার জন্য আপনি ইন্টারনেট স্পিড টেস্ট টুল ব্যবহার করতে পারেন। যারা এগুলো ব্যবহার করতে জানেন না, তাদের জন্য আমাদের আজকের এই লিখাটি।

এটি আপনারা যদি সময় নিয়ে পড়েন এবং এখানে আমাদের যে টুলগুলো দেওয়া আছে সেগুলো নিয়ম অনুযায়ী ব্যবহার করেন। তাহলে আপনারা ইন্টারনেটের স্পিড গুলো পরীক্ষা করতে পারবেন। যার মাধ্যমে ইন্টারনেট ক্রয় করে ঠকে যাবেন না।

ইন্টারনেট স্পিড টেস্ট কেন করা প্রয়োজন?

সাধারণত যাদের কাছ থেকে আমরা ইন্টারনেট ক্রয় করে নিয়েছি, তারা আমাদেরকে ঠকাচ্ছে কিনা। সে বিষয়টি যাচাই করার জন্য আমরা ইন্টারনেট টেস্ট ব্যবহার করতে পারি। ইন্টারনেট স্পিড টেস্ট গুরুত্বপূর্ণ কারণ অনেকেই আমাদেরকে বেশি টাকা নিয়ে ইন্টারনেট সরবরাহ করে আমাদেরকে ঠকিয়ে দেয়।

Advertisement
ইন্টারনেট স্পিড টেস্ট কেন করা প্রয়োজন
ইন্টারনেট স্পিড টেস্ট কেন করা প্রয়োজন

এজন্য আমরা এই বিষয়গুলো জেনে যেন সচেতন থাকতে পারি এবং সঠিক সেবা গ্রহণ করতে পারি। সেজন্য আমাদের ইন্টারনেট স্পিড টেস্ট করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এখন আমরা এই আর্টিকেলের মধ্যে ইন্টারনেট টেস্ট করা নিয়ে অনেক কিছুই জানবো এবং ইন্টারনেট টেস্ট করার অনেকগুলো কার্যকর টুলস সম্পর্কে আলোচনা করবো।

যেগুলো আপনাদেরকে সাহায্য করবে এবং আপনি ইন্টারনেট স্পিড টেস্ট কিভাবে করে তা জানতে পারবেন। শুধুমাত্র ফেসবুক, হোয়াটসঅ্যাপ, বা ইউটিউব চালানোর জন্য নয়। ইন্টারনেট স্পিড এর মধ্যে অনেক রকমের পার্থক্য রয়েছে। আপনি যদি একজন ভিডিও ক্রিয়েটর হয়ে থাকেন এবং ইউটিউব ফেসবুকের জন্য ভিডিও তৈরি করে থাকেন।

ইউটিউব ইন্টারনেট এর স্পিড চেক:

এক্ষেত্রে ইউটিউব ইন্টারনেট এর স্পিড চেক করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আপনি যদি ইউটিউবে ভিডিও আপলোড করতে চান, সে ভিডিওটি আপলোড হতে কত সময় ব্যয় হচ্ছে তা জেনে নিবেন। অনেক ক্ষেত্রে দেখা যায় যে, আপনি যদি একজন ইউটিউবার হয়ে থাকেন, তাহলে আপনি নিজেই প্রমাণ পেয়েছেন।

একটা ভিডিও আপলোড হতে অনেক সময় দেখা যায় চার-পাঁচ ঘণ্টা সময় প্রয়োজন হয়। অথচ আপনার যে ভিডিওটি আপলোড হতে ৫ থেকে ৬ মিনিট সময়ের প্রয়োজন হওয়া উচিত। সে ভিডিওটিতে দেখা যাচ্ছে ৫ ঘন্টা সময় নিচ্ছে। তাহলে বুঝবেন আপনাকে আপনার ইন্টারনেট সেবা প্রদানকারী অপারেটর ঠকাচ্ছে।

Advertisement

আপনাকে বিষয়টি যদি সঠিকভাবে প্রমাণ দিতে হয় দ, তাহলে আপনার ইন্টারনেট স্পিড পরীক্ষা করা উচিত। তাহলে আপনি তাদের সাথে তর্ক করতে পারবেন এবং সঠিক প্রমাণ উপস্থাপন করতে পারবেন।

মোবাইল অ্যাপস দিয়ে ইন্টারনেট স্পিড টেস্ট করার নিয়ম

ডেভলপাররা প্রতিনিয়ত ভালো ভালো সফটওয়্যার গুলোর ডিজাইন করার জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। এই ক্ষেত্রে আপনি আপনার স্মার্টফোনের মধ্যে এমন কিছু সফটওয়্যার ব্যবহার করতে পারবেন, যেগুলোর মাধ্যমে আপনি ইন্টারনেট স্পিড যাচাই করতে পারবেন। আপনি যদি স্মার্টফোন ব্যবহারকারী হয়ে থাকেন, তাহলে আপনার স্মার্টফোনে প্লে স্টোর থেকে এ ধরনের সফটওয়্যার ইন্সটল করে নিতে পারেন।

আপনি যদি প্লে স্টোরে গিয়ে সার্চ করেন ইন্টারনেট স্পিড টেস্ট বা ইন্টারনেট স্পিড টুলস, তাহলে অনেকগুলো অ্যাপস এর তালিকা পেয়ে যাবেন। যেখান থেকে আপনি যে কোন একটা পছন্দের অ্যাপ ইন্সটল করে নিতে পারেন, তবে এক্ষেত্রে অনেক ডেভলপ শুধুমাত্র ইনকামের উপরেই লক্ষ রেখে সফটওয়্যার ডিজাইন করে থাকেন।

যে সকল ডিজাইনার শুধুমাত্র তাদের নিজস্ব স্বার্থ আদায়ের জন্য সফটওয়্যার তৈরি করে থাকেন। সেই সফটওয়্যার গুলো ব্যবহার করে কিন্তু আপনি ভাল ফলাফল পাবেন না। অর্থাৎ এই ধরনের মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করে আপনি ইন্টারনেট যাচাই করতে পারবেন না।

Advertisement

ইন্টারনেট টেস্ট করার জন্য আপনাকে অবশ্যই ভালো মানের একটি মোবাইল অ্যাপ ব্যবহার করতে হবে। তাহলে আপনি আপনার মোবাইল ফোনের মাধ্যমে খুব সহজেই ইন্টারনেট এর গতি নিয়ন্ত্রণ এবং আপনি গতি পাচ্ছেন কি-না সে বিষয়ে যাচাই করতে পারবেন।

সুতরাং আপনি যদি মোবাইল ফোনের মাধ্যমে আপনার ইন্টারনেটের গতি যাচাই করতে চান, তাহলে ইন্টারনেট স্পিড টেস্ট এর যেকোনো ধরনের একটি অ্যাপস স্মার্ট ফোনে ইন্সটল করে ফেলুন।

এখানে এমন কিছু মোবাইল অ্যাপসের তালিকা দিয়ে দিব।

যেগুলো আপনি খুব সহজেই ইন্সটল করে ইন্টারনেটের স্পিড যাচাই করতে পারবেন।

অ্যাপস দিয়ে ইন্টারনেট স্পিড টেস্ট
অ্যাপস দিয়ে ইন্টারনেট স্পিড টেস্ট

ইন্টারনেট স্পিড টেস্ট করার জন্য আপনি মোবাইল ফোনে অনেকগুলো অনলাইন টুল ব্যবহার করতে পারেন। পরবর্তীতে আমরা অনলাইন টুল বিষয়ে আলোচনা করব। এমনকি আপনি এই অনলাইন টুল গুলো ব্যবহার করে ল্যাপটপ এবং কম্পিউটারের মধ্যে এই সুযোগ সুবিধা গুলো উপভোগ করতে পারবেন। অর্থাৎ গুলো ব্যবহার করতে পারবেন।

Advertisement

সুতরাং আপনি যদি একজন ক্রিয়েটিভ হয়ে থাকেন এবং অনলাইনে কাজ করে থাকেন। এক্ষেত্রে আপনার অনলাইনে ভালো কাজের জন্য অবশ্যই ইন্টারনেট স্পিড ভালো থাকা উচিত। এক্ষেত্রে যেন আপনার কাজের ব্যঘাত না হয়, সেজন্য আপনাকে অবশ্যই হাই কোয়ালিটির ভালো ইন্টারনেট নিশ্চিত করতে হবে। যেন আপনি টাকা দিয়ে সঠিক মানের ইন্টারনেট ক্রয় করতে পারেন।

জনপ্রিয় কিছু ইন্টারনেট স্পীড টেস্ট মোবাইল অ্যাপস

Advertisement
  • Internet speed test Meter- SpeedTest Master
  • Speedtest by Ookla
  • Internet Speed Test – Wifi SpeedTest
  • Speedcheck
  • Internet Speed Test SPEEDCHECK
  • Wi-Fi Speed Test by SpeedChecker

ইন্টারনেট গতি পরিমাণ অনলাইন টুলস

মোবাইল দিয়ে অনলাইনে ইন্টারনেট স্পিড যাচাই করার বিষয়টা তো আমরা এতক্ষণ জেনে নিলাম। এখন আমাদেরকে জানতে হবে, কিভাবে অনলাইন টুল ব্যবহার করে ইন্টারনেট স্পিড যাচাই করা যায়? এক্ষেত্রে আপনারা যদি রিকোয়েস্ট করেন, তাহলে প্রাক্টিক্যালি পরবর্তীতে একটা এখানে ভিডিও যুক্ত করে দিব অথবা স্টেপ বাই স্টেপ টিউটোরিয়াল হিসেবে স্ক্রীনশর্ট যুক্ত করে আপনাদেরকে গাইড করব।

তবে আপাতত আমরা শুধুমাত্র আপনাদের টুলস গুলো শেয়ার করতে চাই। যেন আপনারা টুলগুলো ব্যবহার করে ইন্টারনেট স্পিড যাচাই করতে পারেন। আপনারা যারা অ্যাডভান্স লেভেলের আছেন বা টেকনোলজি ভালোবাসেন। আপনারা কিন্তু টিউটোরিয়াল না দেখেও টুলস ব্যবহার করতে পারবেন।

এরপরও আপনাদের যদি মনে হয়, আপনারা অনলাইন টুল গুলো কিভাবে ব্যবহার করতে হয়? সে বিষয়ে জানেন না, অথবা অনলাইন টুল ব্যবহার করে কিভাবে ইন্টারনেট স্পিড যাচাই করতে হয়? সে বিষয়ে যদি আপনাদের সাহায্যের প্রয়োজন হয়, তাহলে আমাদেরকে কমেন্ট করে জানাতে পারেন। যেন আমরা এই লেখাটিকে আপডেট করে আপনাদের জন্য আরো তথ্য বহুল আলোচনা এখানে যুক্ত করে দিতে পারি। এবং প্রাক্টিক্যালি বিষয় গুলো দেখাতে পারি।

Advertisement

অনলাইন টুলস বলতে কি বুঝানো হয়?

সফটওয়্যার বা অ্যাপস বললে আমরা সবাই কিন্তু এগুলো চিনি। কারণ আমরা সব সময় এগুলো নিয়ে আলোচনায় থাকি। যার কারণে আমরা যারা অ্যান্ড্রয়েড ফোন ব্যবহার করে থাকি, তারা খুব সহজেই মোবাইল অ্যাপস বললেই প্লে স্টোর থেকে অ্যাপ গুলো খুব সহজেই ইন্সটল করে ফেলতে পারি। কিন্তু যারা অনলাইনে টুল নিয়ে কাজ করে না, বা সাধারণ ব্যবহারকারী রয়েছে।

তারা কিন্তু টুলস সম্পর্কে জানে না। এক্ষেত্রে আমরা অনলাইন টুলস কি? সে বিষয়ে আপনাদের একটু ধারণা দিতে চাই। যেন যারা টেকনোলজি সম্পর্কে ভালো জ্ঞান রাখেন না, তারাও বিডি ব্লগের মাধ্যমে এই বিষয়গুলো খুব সহজে শিখতে পারেন। আমাদের ওয়েবসাইটটি আপনাদেরকে টেকনোলজি বিষয়ে অনেক ভালো কিছু শিক্ষা দিতে সহায়তা করবে। আপনারা আমাদের সাপোর্ট করবেন আমরা আপনাদের জন্য ভাল ভাল কনটেন্ট নিয়ে আসবো।

অনলাইন টুলস
অনলাইন টুলস

যে গুলো আপনাদেরকে ভাল কিছু শিখতে অনেক উপকারে আসবে। আপনারা আমাদের সাথে থাকবেন। যেটা বলছিলাম আমরা অনলাইন টুল বলতে সাধারণত মনে করি, একটা ওয়েবসাইট বা অ্যপস। যে ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আপনি কোন একটা বিষয় যাচাই করতে পারেন, সেটা হচ্ছে একটা অনলাইন টুল। আপনি যদি অনলাইনে জাতীয় পরিচয় পত্র এর জন্য আবেদন করে থাকেন।

এক্ষেত্রে যে ওয়েবসাইটে গিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্রের জন্য আবেদন করেছেন, অথবা এনআইডির জন্য আবেদন করেছেন। সেটি হচ্ছে একটা অনলাইন টুল। এই অনলাইনের মাধ্যমে আপনি খুব সহজেই কিন্তু জাতীয় পরিচয় পত্রের জন্য আবেদন করতে সক্ষম হয়েছেন। অনলাইনে আরো বিভিন্ন কাজের জন্য বিভিন্ন ধরনের টুল রয়েছে।

Advertisement

সেগুলো আমরা ব্যবহার করে আমরা বিভিন্ন রকমের সুবিধা উপভোগ করতে পারি। একই রকম আমরা যদি ইন্টারনেট স্পিড টেস্ট করতে চাই, তাহলে অনলাইনে এমন কিছু টুল রয়েছে। যেগুলোর মাধ্যমে আমরা ইন্টারনেটের গতি যাচাই করতে পারবো। আশা করছি, আপনারা অনলাইন টুল বলতে কি সেটি সহজে বুঝতে পেরেছেন।

কিছু গুরুত্বপূর্ণ অনলাইন টুলস

আপনারা যেন অনলাইনের মাধ্যমে যেকোন ইন্টারনেটের স্পিড যাচাই করতে পারেন। সেজন্য আমরা এখানে কিছু অনলাইন টুল যুক্ত করে দিচ্ছি। মনে রাখবেন, সবগুলো অনলাইন টুল কিন্তু সঠিক ভাবে আপনাকে রেজাল্ট প্রদান করবে না। এক্ষেত্রে আপনি ইন্টারনেটের গতি যাচাই করার জন্য কয়েকটি টুল ব্যবহার করবেন।

যদি কয়েকটি টুলে আপনার একই রকম রেজাল্ট আসে অথবা কিছু কম আর বেশি আসে, তাহলে এখান থেকে আপনি যে রেজাল্টটা কে বিশ্বাস করতে পারবেন। সে রেজাল্ট টা কে নির্বাচন করবেন। কারণ অনলাইন টুলস কাজের সক্ষমতা অনুযায়ী বিভিন্ন ধরনের রেজাল্ট দিয়ে থাকে। মূলত এমন না যে, এগুলো আপনাকে ভুল তথ্য দিচ্ছে।

ইন্টারনেট এর গতি একেক সময় একেক রকম থাকতে পারে। যার কারণে গতি যখন ভালো থাকবে, তখন আপনার ইন্টারনেটের স্পিড টেস্ট রেজাল্ট ভালো আসবে। যদি আপনার মোবাইলের ইন্টারনেট এর গতি কম হয় তাহলে আপনার ইন্টারনেটের গতি কম থাকবে, তখন সেটার রেজাল্ট কিন্তু অনেকটা খারাপ আসবে। এই জন্য আপনাকে অবশ্যই কয়েকটা টুলের মাধ্যমে যাচাই করতে হবে। যেন ফলাফল কেমন আসছে সেটা কে সঠিকভাবে বুঝতে পারেন।

Advertisement

টুলস লিস্ট —

  • speedtest.net
  • fast.com
  • highspeedinternet.com/tools/speed-test
  • bandwidthplace.com
  • projectstream.google.com/speedtest

ইন্টারনেট স্পীড টেস্ট

সম্মানিত পাঠক, আমরা চেষ্টা করেছি আপনাদেরকে অনলাইন স্পিড টেস্ট করার কিছু সঠিক গাইড শেয়ার করে, এবং কিছু টুল এবং মোবাইল অ্যাপস শেয়ার করে, আপনাদের সহায়তা করার জন্য। আমরা এখানে যে সকল মোবাইল অ্যাপস গুলো আপনাদের সাথে শেয়ার করেছি। সেগুলোর মাধ্যমে আপনারা খুব সহজেই স্মার্টফোন দিয়ে ইন্টারনেটের গতি যাচাই করতে পারবেন।

পাশাপাশি আপনারা যদি অ্যাপ ইন্সটল করতে আগ্রহী না হয়ে থাকেন, তাহলে আমরা যে সকল অনলাইন টুলগুলো আপনাদেরকে দিয়েছি। সেখান থেকে বিভিন্ন টুলগুলো ব্যবহার করে আপনারা অনলাইনের ইন্টারনেটের গতি যাচাই করতে পারবেন। ইন্টারনেটের স্পিড যাচাই করার জন্য আসলে আমি টুলগুলো সব সময় ব্যবহার করি।

আপনারাও এই টুলস এগুলো ব্যবহার করে অনলাইনে ইন্টারনেটের স্পিড যাচাই করতে পারেন। এটি যাচাই করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। যেন আপনি কারো কাছে ঠকে না যান। কারণ বর্তমান সময়ে অনেক অপারেটরের ইন্টারনেট এর গতি বাড়িয়ে দিচ্ছে বলে আপনার কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নেয়।

কিন্তু ভালো ইন্টারনেট সেবা তারা প্রদান করে না। এ ক্ষেত্রে এগুলো ব্যবহার করে আপনি প্রমাণ পেয়ে যাবেন তারা সত্যি সত্যি আপনাকে সঠিক সার্ভিস দিচ্ছে কিনা। নাকি আপনাকে ঢুকিয়ে আপনার টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে।

Advertisement

সম্মানিত পাঠক, আপনারা যদি টেকনোলজি বিষয়ে আরো বিভিন্ন বিষয়ে জানতে চান, তাহলে আমাদেরকে কমেন্ট করতে পারেন। পরবর্তীতে আমরা আপনাদের কমেন্ট গুলো কে রিপ্লাই করার মাধ্যমে আরও বিস্তারিত টিউটোরিয়াল আমাদের ওয়েবসাইটের মধ্যে প্রকাশ করার চেষ্টা করব।

আমরা চাই আমাদের ওয়েবসাইটের মাধ্যমে বাংলা ভাষায় বিভিন্ন টেকনোলজি, বিজনেস আইডিয়া, এবং অনলাইন থেকে অর্থ উপার্জনের বিষয়গুলো শেয়ার করতে। যদি আপনারা এগুলোতে আগ্রহী হয়ে থাকেন, তাহলে আপনাদের আগ্রহটা আমাদের সাথে শেয়ার করেন। যেন আমরা আপনাদেরকে সঠিক কনটেন্টগুলো সরবরাহ করে সাহায্য করতে পারি। আজকে এই পর্যন্তই। সবাই ভাল থাকবেন। আল্লাহ হাফেজ।

bdbloq site icom

একজন ইলেক্ট্রিক্যাল বিষয়ে ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে সবসময় টেকনোলজি কে অগ্রাধিকার দিতে ভালোবাসি। প্রযুক্তির সাথে এগিয়ে যেতে ও নিজেকে সবসময় আপডেট রাখার জন্য নিয়মিত প্রযুক্তিগত জ্ঞান নিজে অর্জনের পাশাপাশি অন্যদের সাথে শেয়ার করাতে ভালো লাগে। সময় পেলে প্রযুক্তি, ব্যবসা, মার্কেটিং বিষয়ে লিখতে চেষ্টা করি। পেশা যাই হোক, তা হতে লাভবান হতে চাইলে ব্যবসা ও মার্কেটিং জ্ঞান আবশ্যক।

বাক্সে আপনার মতামত লিখে জানান