কিভাবে ব্লগ সাইট বানাব

ফ্রিতে কিভাবে ব্লগ সাইট বানাব | ওয়েবসাইট তৈরির ১৪টি প্ল্যাটফর্ম

Advertisement

বিনামূল্যে কিভাবে ব্লগ সাইট বানাব সকল প্রয়োজনীয় রিসোর্স ও প্ল্যাটফর্ম সম্পর্কে আজকের আর্টিকেলে আমরা বিস্তারিত আলোচনা করব। ব্লগিং মূলত একটি নিজের মেধা ও ক্রিয়েটিভিটি কে বজায় রাখার শিল্প। যা লেখা, ছবি, ভিডিও, গ্রাফিক্স ইত্যাদি কে অন্তর্ভুক্ত করে। ব্লগিং একটি ব্যক্তিগত বা কমিউনিটি ভিত্তিক একটি অনলাইন জার্নাল বলা যায়। 

বর্তমানে অনলাইনে নিজের জ্ঞানকে অন্যের সাথে ভাগ করে নেওয়ার জন্য। এবং নিজের  ক্রিয়েটিভিটি গুলো  বিশ্বের মাঝে ছড়িয়ে দিতে ব্লগিং হচ্ছে উপযুক্ত একটি মাধ্যম। এবং সেইসাথে অনলাইন থেকে প্যাসিভ অর্থ উপার্জনের জন্য খুবই জনপ্রিয় একটি পদ্ধতি।

 এই প্লাটফর্ম কে সঠিকভাবে উপস্থাপন করার মাধ্যমে উন্নত মানের ও বিশ্বস্ত একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান তৈরি করা সম্ভব।  ব্লগিংয়ের মাধ্যমে বর্তমানে অনেক ব্লগাররা তাদের বিজনেস পরিচালনা করে যাচ্ছে। গুগল বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে অর্থ উপার্জন এর পাশাপাশি। এখান থেকে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং ও জনপ্রিয় কোম্পানিগুলোর স্পনসর্শিপ সংগ্রহ করে পর্যাপ্ত পরিমাণ অর্থ উপার্জন করা সম্ভব।

বিনামূল্যে কিভাবে ব্লগ সাইট বানাব
বিনামূল্যে কিভাবে ব্লগ সাইট বানাব

এমনকি বর্তমানে জনপ্রিয় ওয়েবসাইট গুলো ঠিক এই পদ্ধতির মাধ্যমে প্রতি মাসেই লক্ষ লক্ষ টাকা অনলাইন থেকে উপার্জন করে নিচ্ছে। শুধুমাত্র নিজের মেধা গুলো অন্যের সাথে ভাগ করে নেওয়ার মাধ্যমে এই বিষয়টি করা সম্ভব। আমরা আমাদের ওয়েবসাইটের মাধ্যমে কিভাবে অনলাইন থেকে অর্থ উপার্জন করে যাচ্ছি।

 অনলাইন থেকে ইনকাম সংগ্রহ করার জন্য প্রথম শর্ত হচ্ছে আপনার পাঠকদের অর্জন করা।  পাঠকদের ধরে রাখাটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ যদি আপনি অনলাইনে আপনার নিজের মেধা গুলো সবার সাথে ভাগ করতে চান।  নিজের মেধা গুলো সবার সাথে ভাগ করার জন্য কিভাবে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করতে হবে এই বিষয়ে আমরা আমাদের ব্লগে অনেকগুলো টিউটোরিয়াল পাবলিশ করেছি। এ বিষয়ে বিস্তারিত জানার জন্য আমাদের ওয়েবসাইট ভিজিট করে দেখুন। 

কিভাবে ব্লগ সাইট বানাব বা ব্লগ সাইট তৈরি করার জন্য কি কি প্রয়োজন হয়?

সাধারণত ব্লগিংয়ের জন্য, প্রাথমিক প্রয়োজনীয়তাগুলি হল একটি ডোমেন নাম এবং একটি ওয়েব হোস্টিং। ডোমেইনটি হচ্ছে আপনার ওয়েবসাইটের নাম এবং হোস্টিং হচ্ছে আপনার ওয়েবসাইটের ডাটাগুলো যে জায়গায় আপনি সংরক্ষণ করবেন তার মেমোরি। উন্নত মানের একটি ব্লগিং ব্যবসা দাঁড় করানোর জন্য অবশ্যই সুন্দর একটি ডোমেইন ও শক্তিশালী একটি হোস্টিং গুরুত্বপূর্ণ।

 বর্তমান সময়ে যেহেতু ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য খুবই জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। এবং ছাত্রছাত্রীরা পড়াশোনার পাশাপাশি ঘরে বসেই ব্লগিং এর মাধ্যমে অর্থ উপার্জন করছে। এজন্য আমরা আজকের আর্টিকেলে এমন কিছু প্লাটফর্ম শেয়ার করব। যে প্ল্যাটফর্ম গুলোর মাধ্যমে ব্লগিংয়ে আগ্রহী। যে কোন ছাত্র-ছাত্রী সম্পূর্ণ ফ্রিতে তাদের ব্লগ ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারবে।

ফ্রিতে কিভাবে ব্লগ সাইট বানাব

আপনার যদি বিনিয়োগ করার মতো কোনো অর্থ না থাকে, তাহলে আপনি এই ফ্রী প্ল্যাটফর্ম গুলোর মাধ্যমে একজন ছাত্র হিসেবে ব্লগিং ক্যারিয়ার শুরু করতে পারেন।  তবে যদি আপনার চার থেকে পাঁচ হাজার টাকা বিনিয়োগ করার মত সামর্থ্য থাকে তাহলে আমাদের পরামর্শ হচ্ছে। আপনি একটা ডোমেইন ও হোস্টিং ক্রয় করে নিজের জন্য ওয়ার্ডপ্রেস এর মাধ্যমে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করুন।

তবে বিনিয়োগ করার কোন সামর্থ্য না থাকলে চিন্তা করার কোনো বিষয় নেই।  আপনি পরবর্তিতে ফ্রিতে কাজ করে অর্থ উপার্জন করার মাধ্যমে নতুন একটা ওয়েবসাইট শুরু করতে পারবেন ডোমেইন এবং হোস্টিং ক্রয় করে। তবে একটা ওয়েবসাইট দাঁড় করানো এত সহজ নয়। সুতরাং যখন শুরু করবেন, তখন থেকে আপনার সাধ্যের মধ্যে সবচেয়ে বেটার প্ল্যাটফর্ম বাছাই করে শুরু করার চেষ্টা করবেন।

Advertisement

সম্পূর্ণ ফ্রিতে কিভাবে ব্লগ সাইট বানাব | ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য সেরা ১৪টি  প্ল্যাটফর্ম:

ব্লগার – 

ফ্রিতে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য যখন চিন্তা করবেন অবশ্যই প্রথমেই ব্লগারের নাম আসবে।   ব্লগার হচ্ছে গুগল নির্মিত একটি ওয়েবসাইট তৈরীর জনপ্রিয় সিএমএস।  সিএমএস এর মানে হচ্ছে কনটেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম।  গুগোল এর মধ্যে বিশ্বের সবচেয়ে বড় একটি কোম্পানি।  আপনি যদি সম্পূর্ণ ফ্রিতে একটা ওয়েবসাইট তৈরী করে অনলাইন থেকে অর্থ উপার্জন করতে চান তাহলে ব্লগার হচ্ছে আপনার জন্য সেরা প্ল্যাটফর্ম।

 আমার নিজেরও অনেকগুলো ওয়েবসাইট রয়েছে যেগুলোর মাধ্যমে আপনি সম্পূর্ণ ফ্রিতে আমার লেখাগুলো সবার মাঝে প্রচার করে থাকি।  ব্লগারের মধ্যে আরেকটি জনপ্রিয় সুবিধা হচ্ছে। আপনি চাইলে পরবর্তীতে একটি ডোমেইন ক্রয় করে। আপনার ওয়েবসাইটের সাথে কানেক্ট করতে পারবেন। যারা ফ্রি তে ব্লক ওয়েবসাইট তৈরি করে থাকেন তাদের মধ্যে অধিকাংশই পছন্দনীয় প্ল্যাটফর্ম হচ্ছে ব্লগার।

 ব্লগার এর মাধ্যমে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করতে আপনাকে কোন হোস্টিং ক্রয় করতে হবে না।  এবং গুগল থেকে আপনাকে একটি সম্পূর্ণ ফ্রীতে দেওয়া হবে। যেটির মাধ্যমে আপনি আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারবেন। ব্লগার এর মাধ্যমে আপনি ওয়েবসাইট তৈরি করলে আপনার ওয়েবসাইটের স্পিড ফাস্ট হবে। 

ওয়ার্ডপ্রেস:

বর্তমানে জনপ্রিয় একটি কনটেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম হচ্ছে ওয়ার্ডপ্রেস।  এই সিএমএস এর চাহিদা বিশ্বের মধ্যে খুব দ্রুত বৃদ্ধি পেয়েছে।  ওয়ার্ডপ্রেস এর মাধ্যমে আপনি চাইলে একটি ডোমেইন হোস্টিং ক্রয় করে আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারবেন।  অথবা সম্পূর্ণ বিনামূল্যে আপনি আপনার ওয়েবসাইটটি তৈরি করতে পারবেন।  ব্লগার এর পরে কোন সিএমএস কে যদি আমি রেফার করে থাকে সেটি হচ্ছে ওয়ার্ডপ্রেস।  ওয়ার্ডপ্রেস  সত্যি একটি অসাধারণ কনটেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম।

 বিশ্বের মধ্যে বর্তমানে কতগুলো ওয়েবসাইট তৈরি হচ্ছে। তার মধ্যে ৬০ পার্সেন্ট এরও বেশি ওয়েবসাইট তৈরি হচ্ছে ওয়ার্ডপ্রেস সিএমএস ব্যবহার করে।  বুঝতেই পারছেন আপনি ওয়ার্ডপ্রেস এর চাহিদা বিশ্বের মধ্যে কতটুকু বৃদ্ধি পাচ্ছে।  গুগল বিজ্ঞাপন, অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং, এবং স্পনসর্শিপ সংগ্রহ করে অনলাইন থেকে অর্থ উপার্জন করার জন্য। ওয়ার্ডপ্রেস এর মাধ্যমে আপনার ব্লগিং ক্যারিয়ার শুরু করতে পারেন।

যখন কেউ  আমার কাছে ওয়েবসাইট তৈরীর জন্য পরামর্শ চান এবং সেরা প্লাটফরমটি বাছাই করার জন্য বলে দেন।  আমি খুব সহজেই তাদের জন্য ওয়ার্ডপ্রেস কে রেফার করে থাকি। কারণ আমি জানি যে একমাত্র ওয়ার্ডপ্রেসে হচ্ছে বিশ্বের মধ্যে টপ রেংকিং এর একটি ওয়েবসাইট পরিচালনাকারী প্রতিষ্ঠান।  আপনার যদি কোন জ্ঞান না থাকে অনলাইন সম্পর্কে। তারপরেও আপনি ওয়ার্ডপ্রেস এর মাধ্যমে একটি বিনামূল্যে ওয়েবসাইট পরিচালনা করতে পারবেন।

 মিডিয়াম: 

 নিজের গল্পগুলোকে সবার  মাঝে ছড়িয়ে দেওয়ার জন্য মিডিয়াম হচ্ছে একটি জনপ্রিয় প্ল্যাটফর্ম। মিডিয়ামে আমি নিজেও আমার লেখাগুলো নিয়মিত প্রকাশ করার চেষ্টা করি।  মিডিয়াম এর মাধ্যমে আপনি আপনার গুগল মেইল ব্যবহার করে। কয়েক মিনিটের মধ্যেই আপনার প্রোফাইল তৈরী করতে পারবেন।  আপনার জিমেইল এর মাধ্যমে রেজিস্ট্রেশন করার পরে যে প্রোফাইলটি তৈরি হবে। সেটি হচ্ছে আপনার ব্লগিং প্লাটফর্ম। 

 মিডিয়াম লেখকদের জন্য এমন একটি সুবিধা প্রদান করে তাকে যেন লেখকদেরকে তাদের ওয়েবসাইট তৈরীর জন্য চিন্তা করতে না হয়। কয়েক মিনিটের মধ্যেই  একজন লেখক তার লেখাগুলো বিশ্বের মধ্যে ছড়িয়ে দেওয়ার জন্য। যেন মিডিয়াম প্ল্যাটফর্ম কে ব্যবহার করে তার প্রোফাইল তৈরি করতে পারে। সে সুবিধা প্রদান করে এই মিডিয়াম।

এই প্ল্যাটফর্ম এর মাধ্যমে আপনি আপনার গুগল বিজ্ঞাপন দেখিয়ে অর্থ উপার্জন করতে পারবেন না।  তবে এখান থেকে অর্থ উপার্জন করার জন্য আরো অনেকগুলো মাধ্যম রয়েছে যেগুলো প্রফেশনাল লেখকরা  ব্যবহার করে থাকে।  যেমন আপনি গুগল বিজ্ঞান  ছাড়াও অর্থ উপার্জনের জন্য অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং,  স্পনসর্শিপ,  রিভিউ পোস্ট,  প্রডাক্ট প্রমোশন ইত্যাদি ব্যবহার করতে পারেন।

Advertisement

Wix

অবশ্যই ব্লগিং সরবরাহকারী সমস্ত ব্লগ সাইটের তালিকার মধ্যে Wix অন্যতম একটি। এটিতে অনেক থিম এবং ডিজাইন রয়েছে। এখানে কাস্টমাইজেশন পদ্ধতিটি এমন যে, কেউ তার ব্লগটিকে তার ড্রাগ-এন্ড ড্রপ সুবিধা দ্বারা সহজেই ডিজাইন করতে পারে। ব্যাক-এন্ড কার্যকারিতাটি WIX নিজেই যত্ন নিয়েছে।

কোন পূর্ব অভিজ্ঞতা ছাড়া নিজের ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য উইংস হচ্ছে খুবই জনপ্রিয় একটি কনটেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম।  প্ল্যাটফর্মটি এমনভাবে সাজানো হয়েছে হয়েছে। যাতে এটি দ্রুত লোড হয় এবং একটি দুর্দান্ত ব্যবহারকারীর অভিজ্ঞতা দেয়। এখানে একমাত্র অসুবিধা হ’ল ড্রাগ এবং ড্রপ এর কারণে কখনও কখনও পছন্দসই আউটপুট পাওয়া যায় না।

এছাড়াও, এই প্ল্যাটফর্মটির গ্রাহক সমর্থন ভাল এবং তারা জনগণের প্রশ্নের সমাধান সরবরাহ করে যথাসময়ে। Wix ব্লগিং ক্যারিয়ার শুরু করা প্রায় বিনা মূল্যে প্রাথমিক স্তরে উপকারী হতে পারে।

Weebly: 

Weebly ফ্রি ব্লগিং সরবরাহকারী সমস্ত ব্লগিং সাইটের গ্রহণযোগ্য তালিকার জনপ্রিয়তায় রয়েছে।  যে কেউ টেম্পলেট এবং  ড্রাগ এন্ড ড্রপ বার্টন ব্যবহার করে সহজেই টেনে এনে তাদের ব্লগে একটি ভাল ডিজাইন করে নিতে পারে। অন্যান্য প্ল্যাটফর্মগুলির মতো উইবলিতেও সাইডবার, ফর্ম, বিজ্ঞাপন স্পেস, সোশ্যাল মিডিয়া আইকন ইত্যাদি রয়েছে।

আপনার প্ল্যাটফর্মে আপনার ডেটা সুরক্ষার যত্ন নেওয়া হয় এবং স্প্যামের বিরুদ্ধে সুরক্ষাও সরবরাহ করা হয়। যদিও ব্লগের কারও সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ না থাকায় এখানে অগ্রিম সেটিংস পরিবর্তন করা যায় না।

500MB এর স্টোরেজ সহ আমরা এখানে অনেকগুলি নথি, ছবি, ভিডিও আপলোড এবং সঞ্চয় করতে পারি। এসএসএল সার্টিফিকেটটি ফ্রি পরিষেবা হিসেবে দেওয়া হয়ে থাকে।

Jimdo:

ফ্রি ব্লগিং সুবিধা প্রদান করে এমন সমস্ত ব্লগ সাইটের তালিকার মধ্যে জিম্বো হ’ল একটি প্ল্যাটফর্ম। যে কেউ সহজেই ডোমেন হোস্ট করতে এবং এই প্ল্যাটফর্মটিতে ব্লগিং শুরু করতে পারে। কোনও ব্যক্তি ব্লগিং সাইটের সন্ধান করতে চাইলে, তার জন্য এটি বহুমুখী প্ল্যাটফর্ম।

এই প্ল্যাটফর্মের একটি প্লাস পয়েন্ট হ’ল এটি এআই দ্বারা চালিত এবং তাই ব্লগটি সেট আপ করতে আক্ষরিক অর্থে 3-4 মিনিটেরও কম সময় লাগে।  কয়েকটি প্রশ্নের উত্তর দেওয়া স্বয়ংক্রিয়ভাবে ব্লগ সেট আপ করার জন্য যথেষ্ট। এখানে ড্রাগ-এন্ড-ড্রপ বিকল্পটি ব্লগটি ডিজাইনে সুবিধা দেয়।  এখানে ডিজাইনের সীমাবদ্ধতা কেবল চিন্তার বিষয়।

Bravenet:

Bravenet গ্রাহককে একটি সাব-ডোমেন ও উন্নত বৈশিষ্ট্যগুলি সহ ব্লগিংয়ের জন্য একটি ভাল প্যাকেজ সরবরাহ করে। যদিও লোকেরা একটি ক্রয়কৃত ডোমেন যুক্ত করতে পারে। তবে বিনা মূল্যে শুরু করার এটিও দুর্দান্ত সুযোগ।

Advertisement

এই প্ল্যাটফর্মটি ফ্রী সেবা প্রদানকারী সমস্ত ব্লগিং সাইটের তালিকার মধ্যে রয়েছে। যা সাধারণ ডিজাইন এবং দক্ষ দৃষ্টিভঙ্গির কারণে বিনামূল্যে ব্লগিং সরবরাহ করে। উইজেট এবং টেমপ্লেট নেভিগেট করতে, ড্রাগ এবং ড্রপ বিকল্পটি এখানে ব্যবহার করার সুযোগ রয়েছে।

এই প্ল্যাটফর্মটি অর্থাৎ Bravenet ইমেল বিক্রির সেবা সরবরাহ করে। যার লক্ষ্য ক্লায়েন্টদের লালনপালনের জন্য একটি যোগাযোগের তালিকা তৈরিতে সুবিধা সরবরাহ করা। এটি বার্তাগুলি ডিজাইনে সহায়তা করে।

সীমিত সময়ের মধ্যে আপনার নতুন ব্লগ ওয়েবসাইটে ট্রাফিক বৃদ্ধি করার জন্য। ইমেইল পরিষেবাটি ব্যবহার করে আপনি আপনার ব্লগ সাইটে ভিজিটর নিয়ে আসতে পারেন। অন্যান্য যতগুলো প্ল্যাটফর্ম রয়েছে তাদের থেকে Bravenet হচ্ছে ভিন্ন।

X10Hosting:

X10Hosting হ’ল আর একটি ব্লগিং সাইট। যেখানে আমরা আমাদের ডোমেন হোস্ট করতে পারি। এবং ব্লগিংয়ের মাধ্যমে চিন্তাভাবনা ভাগ করে নিতে পারি।

এটির একটি সহজ ইন্টারফেস রয়েছে এবং ফ্রি ব্লগিং সরবরাহ করে। এমন সমস্ত নিখরচায় ব্লগিং সাইটগুলির তালিকাতে X10Hosting অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। পিএইচপি, মাইএসকিউএল এর মতো ভাষার সাহায্যে এই প্ল্যাটফর্মটি দক্ষতার সাথে দ্রুত লোডিং সরবরাহ করে।

ই-কমার্স স্টোর চালিয়ে যাওয়ার জন্য ম্যাজেন্টোররে মতো ইকমার্স সরঞ্জামগুলি এখানেও সরবরাহ করা হয়। কর্মক্ষমতা বাড়াতে এবং ব্লগে ট্র্যাফিক চালাতে ৩টি ইমেল সরবরাহ করা হয়।

Freehostia:

Freehostia এমন একটি প্ল্যাটফর্ম যা দ্রুত লোডিং এবং একটি স্থিতিশীল সার্ভার সরবরাহ করে।  কোনও সংস্থান ছাড়াই কোনও ব্যক্তির জন্য শুরু করার জন্য একটি ভাল ব্লগিং প্ল্যাটফর্ম।

ই-বাণিজ্য স্টোর চালিয়ে যাওয়ার জন্য প্ল্যাটফর্মটি ই-বাণিজ্য সরঞ্জাম সরবরাহ করে।  Freehostia প্ল্যাটফর্মটি অনেকের দ্বারা পছন্দ করা কারণ এটি সাইটের দ্রুত লোড করতে সহায়তা করে।

হোস্টহোগিয়া হোস্ট করা ব্লগ সাইটগুলির জন্য একটি ভাল আপটাইম সরবরাহ করে। 

Advertisement

জুমলা –

জুমলা এর মাধ্যমে যে কোন সাইট হোস্টিং এবং ডোমেন যুক্ত করার জন্য একটি সহজ প্ল্যাটফর্ম।  প্ল্যাটফর্মটির একটি নমনীয় নকশা রয়েছে। জুমলা অনেকটা ওয়ার্ডপ্রেসের মতোই দেখাই।  ওয়ার্ডপ্রেসের সকল সুবিধা রয়েছে এবং ওয়ার্ডপ্রেসের টুলগুলো ব্যবহারের নিয়ম রয়েছে। জুমলাতে অনেকটা এই  একইভাবেই আপনি ওয়ার্ডপ্রেস এর মত সবকিছু ম্যানেজ করতে পারবেন। 

ফন্ট, রঙ, আকার, ইমোটিকন, টেবিল বা পটভূমি সহজেই এখানে সহজেই কাস্টমাইজ করা যায়।  জুমলাতে একটি ক্লাসিক সম্পাদক রয়েছে যা মাইক্রোসফ্ট ওয়ার্ডের অনুরূপ। এককথায় অন্যান্য জনপ্রিয় যতগুলো কন্টাক্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম রয়েছে। তাদের মধ্যে জুমলা অনেক বেশি জনপ্রিয়।  আপনি আপনার ফ্রিতে ব্লগিং ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য জুমলা কে খুব সহজে সিলেক্ট করতে পারেন।

ব্লগিং এর পাশাপাশি আপনি যদি চান আপনার এই কমার্স বিজনেস দাড় করানোর জন্য। তাহলে আপনি একটা ই-কমার্স ওয়েবসাইট জুমলা এর মাধ্যমে সম্পূর্ণ ফ্রীতে তৈরি করার সুবিধা পাবেন। বর্তমানে অনেকেই জুমলা কে ব্যবহার করে এই কমার্স ওয়েবসাইট তৈরী করে অনলাইনে ব্যবসা পরিচালনা করছে। 

এই প্ল্যাটফর্মের বৃহত ব্যবহারকারীর ভিত্তি ব্লগিংয়ের প্রাথমিক স্তরের ব্লগগুলিতে এক্সপোজার দিতে সহায়তা করে।

টাম্বলার:

ফ্রি ব্লগিং সরবরাহকারী সমস্ত ব্লগিং সাইটের তালিকার মধ্যে টাম্বলার একটি দ্রুত বর্ধনশীল প্ল্যাটফর্ম। প্ল্যাটফর্মটি অন্য প্ল্যাটফর্মের মতো ফেসবুক, টুইটার ইত্যাদির মতো দেখায়। এই প্ল্যাটফর্ম এর মাধ্যমে আপনি গুগল বিজ্ঞাপন দেখে অর্থ উপার্জন করতে পারবেন না।  ঠিক একইভাবে মিডিয়াম এর মাধ্যমে অর্থ উপার্জন উপায়গুলো বেছে নিয়েছিলেন। অনুরূপভাবে টাম্বলারের মাধ্যমে আপনাকে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং, স্পনসর্শিপ, ইত্যাদির মাধ্যমে অনলাইন থেকে অর্থ উপার্জন করতে হবে। 

টাম্বলার একটি মাইক্রো-ব্লগিং কুলুঙ্গি এবং এই প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে ব্লগিং সত্যিই লাভজনক হতে পারে। টাম্বলার ব্লগ এবং আপলোড হওয়া চিত্রগুলিকে একটি উৎকৃষ্ট এবং আকর্ষণীয় ডিজাইন দেয়। এটি আরও ভাল কাস্টমাইজেশনের জন্য তাদের আগে থেকেই ডেভলপ করা কিছু জনপ্রিয় থিম সরবরাহ করে। তাদের ডিজাইন গুলো আপনার পছন্দ না হলে, আপনি তৃতীয় পক্ষের কোনো ডিজাইন সেখানে আপলোড করে। আপনার ইচ্ছামত করে আপনি ডিজাইন করতে পারেন আপনার ব্লগ সাইট।

ফ্রি ব্লগিং সরবরাহকারী সমস্ত জনপ্রিয় ব্লগিং সাইটগুলির তালিকা বিবেচনা করে, টাম্বলার বিনামূল্যে ব্লগিং শুরু করার অন্যতম সেরা প্ল্যাটফর্ম।

Webs – 

অবশ্যই ব্লগিং সেবা প্রদানকারী সমস্ত ব্লগ সাইটের তালিকার ওয়েবসাইটগুলির মধ্যে Webs হ’ল আরেকটি ফ্রি ওয়েবসাইট নির্মাতা।  এটিতে আশ্চর্যজনক বৈশিষ্ট্য রয়েছে। এবং এটি নির্বাচন করার মাধ্যমে সত্যিই ব্লগের মান উন্নীত করতে পারেন।

এখানে ড্রাগ-এন্ড-ড্রপ অপশনটি সহজেই ব্লগটিকে কাস্টমাইজ করতে এবং দক্ষতার সাথে এটি ডিজাইন করতে সহায়তা করে।  ইনবিল্ট মোবাইল ওয়েবসাইট নির্মাতা প্রতিক্রিয়াশীল ওয়েব পৃষ্ঠাগুলি তৈরি করতে সহায়তা করে। যা ব্লগগুলি দ্রুত লোডিংয়ে সহায়তা করে।

Advertisement

ওয়েবসাইটগুলি আমাদের শ্রোতার বেজ ট্র্যাক করার অনুমতি দেয়। যাতে আমরা আমাদের দর্শকদের আগ্রহ অনুযায়ী পোস্ট লিখতে পারি। যদিও বৈশিষ্ট্যগুলি সীমাবদ্ধ তবে প্রাথমিক পর্যায়ে এতটুকুতে যাওয়া ভাল।

Squarespace: 

ব্লগিং প্রদানকারী সমস্ত ফ্রি ব্লগিং সাইটের তালিকা Squarespace ছাড়াই অসম্পূর্ণ। আমরা সহজেই এই প্ল্যাটফর্মটির সাহায্যে আমাদের ব্লগটি কাস্টমাইজ করতে পারি। এটি একটি ব্লগ তৈরির অন্যতম সহজ এবং সময় সাপেক্ষ উপায়।

এই প্ল্যাটফর্মটিতে একটি অন্তর্নির্মিত মোবাইল ওয়েবসাইট নির্মাতা রয়েছে যা আমাদের ব্লগকে কোনও মোবাইল ডিভাইসে লোড করতে সহায়তা করে। এছাড়াও, আমরা কাঙ্ক্ষিত আউটপুট দিতে আমাদের ব্লগে সিএসএস যুক্ত করতে পারি।

গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টি লক্ষণীয় হ’ল বেশিরভাগ ফটোগ্রাফাররা বিভিন্ন থিমের উপলব্ধতার কারণে এই সাইটটিকে বেশি পছন্দ করেন এবং এটি অর্থোপার্জনের এক দুর্দান্ত উপায়।

প্ল্যাটফর্মটিতে অনলাইন বিপণনের সরঞ্জাম রয়েছে যা একটি অনলাইন স্টোরকে সঠিকভাবে বজায় রাখতে সহায়তা করে।

Ghost:

প্ল্যাটফর্মটি আরও ভাল ব্লগিং অভিজ্ঞতার জন্য মার্জিত বর্ণ সরবরাহ করে। Ghost প্ল্যাটফর্মটি শুরু করার জন্য একটি খুব ভাল প্ল্যাটফর্ম। এবং তাই এই প্ল্যাটফর্মটি ফ্রি ব্লগিং সরবরাহকারী সমস্ত ব্লগিং সাইটের তালিকায় একটি স্থান তৈরি করে নিয়েছে।

এই প্ল্যাটফর্মের সরলতা প্রাথমিকভাবে প্রাথমিক সমস্যাগুলির সাথে সহজেই মোকাবেলার জন্য নতুনদের জন্য একটি প্লাস পয়েন্ট দেয়।

ড্যাশবোর্ডটি টেমপ্লেট, থিম, উইজেট ইত্যাদির মতো সমৃদ্ধ বৈশিষ্ট্যগুলি সরবরাহ করে যাতে ব্লগটির জন্য প্রফেশনাল ডিজাইন দেওয়া যায়।  অন্যান্য প্ল্যাটফর্মগুলির তুলনায় এখানে সরবরাহিত প্লাগইন সংখ্যায় কম।

উপসংহার:

উপরে ফ্রি ব্লগিং সেবা প্রদানকারী সমস্ত ব্লগ সাইটের কয়েকটি তালিকা উল্লেখ করা হয়েছে। যেহেতু আমরা বেশিরভাগ কম ইনভেস্ট নিয়ে ব্লগিংয়ের ক্ষেত্রে প্রবেশ করি, তাই এক্ষেত্রে উপরের ফ্রি ব্লগিং সাইটগুলি খুব উপকারী হতে পারে।

Advertisement

ব্লগিং এইভাবে একটি দুর্দান্ত শিল্প, এবং তাই কিছুটা সময় শিখতে এবং পরীক্ষাগুলিতে ব্যয় করে বিশাল সাফল্যের ফলস্বরূপ। ব্লগিং করা খুব কঠিন কাজ বলে মনে হতে পারে তবে সঠিক জ্ঞান এবং দিকনির্দেশের সাহায্যে যে কেউ অবশ্যই এই ক্ষেত্রে দক্ষতা অর্জন করতে পারে।

সুতরাং এই ফ্রিতে কিভাবে ব্লগ সাইট বানাব আর্টিকেলটি সেই সমস্ত তরুণ উদীয়মান ব্লগারদের পক্ষে সহায়ক হতে পারে। যাদের লেখার অনুরাগ রয়েছে এবং সাফল্যের জন্য মরিয়া।

Advertisement
Advertisement

নিচের বাক্সে আপনার মতামত লিখে জানান।