সিপিএ মার্কেটিং কি

সিপিএ মার্কেটিং কি এবং CPA Marketing এর সম্পূর্ণ গাইডলাইন

Advertisement

অনলাইন থেকে আয় করার জন্য সিপিএ মার্কেটিং কি এবং CPA Marketing এর সম্পূর্ণ গাইডলাইন নিয়ে আলোচনা করবো। আপনি যেন আজ থেকে CPA মার্কেটিংয়ের কাজ শুরু করতে পারেন, সেইভাবে পরিপূর্ণ বিষয়টা বুঝানোর চেষ্টা করবো। সিপিএ মার্কেটিং সম্পর্কে আমি গুগলে অনেক সার্চ করেছি। এখনো আমি বাংলা ভাষায় এরকম কোন কোয়ালিটি কনটেন্ট পাই নাই। যার মাধ্যমে পরিপূর্ণভাবে সিপিএ মার্কেটিং শেখা যাবে। আসলে এই বিষয়টি অনেক দুঃখজনক! যদি বাংলা ভাষায় সিপিএ মার্কেটিং সম্পর্কে ভালো গাইডলাইন থাকতো, তাহলে আমরা হয়তো এই সিপিএ মার্কেটিং ব্যবহার করে অনেক ভালো অর্থ উপার্জন করতে সক্ষম হতাম।

আশা করছি, এটা দূর করার জন্য অনেক ব্লগার “সিপিএ মার্কেটিং কি” বিষয় নিয়ে ভালোভাবে লিখতে চেষ্টা করবে। আমিও আজকে চেষ্টা করব, সিপিএ মার্কেটিং সম্পর্কে সাধারণ বিষয়গুলো বোঝার জন্য। সিপিএ মার্কেটিং সম্পর্কে আমি অনেকদিন ধরে কাজ করেছি। এই বিষয়ে আমার অনেক ভালো একটি অভিজ্ঞতা রয়েছে। তবে এরকম নয় যে, আমি পরিপূর্ণভাবে এটাতে এক্সপার্ট। তবে যথাসম্ভব চেষ্টা করব সকল প্রয়োজনীয় তথ্যগুলো সরবরাহ করে আপনাদের যথাসম্ভব সত্য তথ্য গুলো দেওয়ার জন্য। যেন আপনারা সঠিকভাবে এখান থেকে লাভবান হতে পারেন।

একসময় স্বপ্নের কথা থাকলেও বর্তমানে অনলাইন থেকে আয় সম্পর্কে আপনারা সবাই জানেন। কিন্তু যারা শুধুমাত্র শুনেছে কিন্তু কোন সময় চেষ্টা করে দেখেনি। তারা অনলাইনের মাধ্যমে আয় করাকে ভুল বোঝেন। সুতরাং ভুল তারাই বুঝবে। যারা কখনও চেষ্টা করে দেখেনি।

অনলাইন থেকে অর্থোপার্জনের বিষয়ে ইতিমধ্যে আমাদের বিডি ব্লগে অনেকগুলো আর্টিকেল প্রকাশিত হয়েছে। যদি আপনি অনলাইন থেকে অর্থ উপার্জন করার প্রতি আগ্রহী হয়ে থাকেন, তাহলে প্রাথমিকভাবে সিপিএ মার্কেটিং নিয়ে কাজ না করলে আপনার জন্য ভালো হয়। কারণ, সিপিএ মার্কেটিং নিয়ে কাজ করার জন্য যদি আপনি এগিয়ে যেতে চান, তাহলে আপনাকে প্রাথমিকভাবে যথেষ্ট সময় ব্যয় করতে হবে। আপনি চাইলে ইনিশিয়াল ইনকাম করতে পারবেন না। যদি কয়েকদিন চেষ্টা করেন, তাহলে যথেষ্ট পরিমাণে আপনাকে কষ্ট করতে হবে।

যদি আপনি কষ্ট করার জন্য ত্যাগ স্বীকার করতে পারেন, অবশ্যই আপনি সিপিএ মার্কেটিং এর কাজ করতে পারবেন। আমি এইজন্য বললাম, যেহেতু আপনি নতুন অনলাইন থেকে কাজ করে ইনকাম করতে চেষ্টা করবেন। সেহেতু আপনাকে প্রথমে বিগেনার লেভেলের কাজগুলো নিয়ে এগোতে হবে। যদি আপনি প্রাথমিকভাবে সিপিএ মার্কেটিং নিয়ে কাজ করতে চান, আপনাকে কোন জায়গা থেকে কোর্স করার জন্য আমি পরামর্শ দিচ্ছি।

সিপিএ মার্কেটিংয়ের কাজ করলে আপনাকে অনেক দিন যাবত কাজ করে অনলাইন থেকে অর্থ উপার্জন করতে হবে এমনটা কিন্তু নয়। যদি আপনি এই বিষয়ে ইতিমধ্যে এক্সপার্ট হয়ে থাকেন, তাহলে আপনি আজকে কাজ শুরু করে কাল থেকেই সিপিএ মার্কেটিং এর মাধ্যমে অর্থ উপার্জন করতে পারবেন। এটা খুব সহজ পদ্ধতি যদি আপনার এই বিষয়ে ভালো অভিজ্ঞতা থাকে। সুতরাং যদি আপনার সাধারন কিছু অভিজ্ঞতা থাকে, তাহলে আমি বলব অনলাইনে অন্যান্য কাজ গুলো বাদ দিয়ে আপনি সিপিএ মার্কেটিং মনোযোগী হন। এখান থেকে ভালো একটা ক্যারিয়ার করতে পারবেন। এবং অর্থনৈতিকভাবে আপনি খুব দ্রুত স্বাবলম্বী হতে পারবেন।

ভুল বুঝার দিন শেষ, সিপিএ মার্কেটিং কি বাংলাদেশ –

সিপিএ মার্কেটিং নিয়ে আগে চেষ্টা করেছেন কিন্তু আপনি ইনকাম করতে পারেননি। এরকম যদি কেউ থাকেন, তাহলে এবিষয়ে আপনার হয়তো ভুল ধারণা তৈরী হতে পারে। আপনি এবিষয়ে কখনো ভুল ধারণা তৈরি করতে পারবেন না। কারণ, এটি একটি অনলাইন থেকে অর্থ উপার্জনের জন্য প্রফেশনাল উপায়। যদি আপনার যথেষ্ট জ্ঞান এই বিষয় না থাকে, তাহলে কিন্তু আপনি কখনো সিপিএ মার্কেটিং থেকে অর্থ উপার্জন করতে পারবেন না।

এজন্য আমি শুরুতেই বলেছি যদি আপনি নতুন হয়ে থাকেন, প্রথমদিকে সিপিএ মার্কেটিং দিয়ে অর্থ উপার্জন করার চেষ্টা করবেন না। যদি আপনার ইতিমধ্যে ভুল ধারণা তৈরী হয়ে থাকে, তাহলে সেই ধারণাটি ভুলে যান। আপনাকে নতুন করে শুরু করতে হবে। অনেকেই আমরা কাজ করার ক্ষেত্রে নিজের অজান্তেই সঠিক জ্ঞান না থাকার কারণে বিভিন্ন বিষয়ে ভুল ধারণা তৈরি করে ফেলি।

যদি এই ধরনের ভুল ধারণা নিয়ে আপনি কাজে এগিয়ে যান, তাহলে কিন্তু সঠিকভাবে সফলতা অর্জন করতে পারবেন না। আজকে আমরা যে ধরনের তথ্যগুলো শেয়ার করব। সেগুলো কিন্তু শতভাগ সত্য এবং এই সত্য কথাকে সত্য তে রূপান্তরিত করার জন্য আপনাকে অবশ্যই পরিশ্রম করতে হবে। পরিশ্রম সফলতার প্রধান কৌশল।

Advertisement

সিপিএ মার্কেটিং বিষয়ে যদি আপনার সঠিক জ্ঞান না থাকে, আপনি আমাদেরকে প্রশ্ন করতে পারেন। আমাদেরকে নিচের কমেন্ট বক্সে প্রশ্ন করতে পারেন অথবা সরাসরি ফেসবুক পেজে গিয়ে ম্যাসেজ পাঠাতে পারেন। আমরা যথাসম্ভব আপনাকে তথ্য সহ সব কিছু দিয়ে বোঝানোর চেষ্টা করবো। আপনারা যদি এই বিষয়ে ভুল ধারণা ভাঙতে না পারেন, তাহলে কিন্তু আপনাদের ক্ষতি হবে। কোন কিছু সম্পর্কে না জেনে চুপ থাকাটা আসলেই অন্যায়। যদি আপনি বিষয়টি সম্পর্কে ভালোভাবে না জানেন, তাহলে অবশ্যই প্রশ্ন করতে শিখুন।

যত বেশি প্রশ্ন করবেন, তত বেশি আপনি শিখতে পারবেন। তবে কাউকে কোন বিষয়ে প্রশ্ন করার সময় অবশ্যই সাবলীল ভাষায় আপনাকে জিজ্ঞেস করতে হবে। যেহেতু অন্য কারো কাছ থেকে আপনি কিছু গ্রহণ করতে চাচ্ছেন। সেহেতু তাকে আপনি ধমক দিয়ে কোনোভাবেই কিছু অর্জন করতে পারবেন না। এক্ষেত্রে অবশ্যই আপনি সুন্দর আচরণ দিয়ে মেসেজ করবেন। অনেকেই দেখি কোন বিষয়ে জিজ্ঞেস করার সময় এমনভাবে জিজ্ঞেস করে।

যেন সে অনেক টাকা দিয়েছে তার বিনিময়ে আমার কাছ থেকে এই প্রশ্নটির উত্তর জানতে চাচ্ছে। আশা করছি, এই ধরনের আচরণ কেউ করবেন না। যেন মনে কষ্ট না আসে। এই ধরনের আচরণ গুলো আসলে আমাদেরকে অনেকটা ভুল পথে নিয়ে যায়। সুতরাং আমাদের সুন্দর আচরণ আমাদেরকে উন্নত এবং সুন্দর জীবন গড়ার জন্য অনেক বেশী সাহায্য করবে বলে আমি আশা রাখছি। কেউ মনে কিছু নিবেন না। এটা আপনাদের ভালোবাসি বলেই সুন্দর আচরণের বিষয়ে বললাম।

সিপিএ বনাম এফিলিয়েট মার্কেটিং – তারা কি এক?

সিপিএ মার্কেটিং কি এই বিষয়ে আপনাদেরকে বিস্তারিত বুঝানোর আগেই অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এবং সিপিএ মার্কেটিং এর মধ্যে পার্থক্যটা একটু আপনাদেরকে বুঝিয়ে বলি। কারণ, অনেকেই মনে করে থাকেন এফিলিয়েট মার্কেটিং এবং সিপিএ মার্কেটিং দুইটা একই বিষয়। আসলে এদের মধ্যে আকাশ পাতাল পার্থক্য রয়েছে। সিপিএ মার্কেটিং কি এই বিষয়ে আমরা নিচে সংজ্ঞা দেওয়ার চেষ্টা করব।

যে সংজ্ঞা থেকে আপনারা সিপিএ মার্কেটিং সম্পর্কে ভালো বুঝতে পারবেন। এখন আপনাদেরকে আসলে বুঝাতে হচ্ছে, অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং সম্পর্কে। কারণ, আর্টিকেলের মধ্যে আমরা অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করব না। অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং সম্পর্কে আমাদের ব্লগ সাইটে ইতিমধ্যে অনেকগুলো আর্টিকেল প্রকাশিত হয়েছে। অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করতে চাইলে আমাদের পূর্বের অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং সম্পর্কিত ব্লগ গুলো পড়তে পারেন। আমাদের অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং নিয়ে শুধুমাত্র একটা এক্সট্রা ক্যাটাগরি রয়েছে। যেখানে শুধুমাত্র অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং নিয়ে আমরা আলোচনা করেছি।

আশা করছি, যারা অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করতে আগ্রহী, তাদেরকে এই ক্যাটাগরি অনেক বেশী সাহায্য করবে। অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং হচ্ছে এমন একটা পদ্ধতি। যেখানে নির্দিষ্ট কিছু সার্ভিস বা প্রডাক্ট কে আপনি প্রমোট করতে পারবেন। এবং যে সকল সার্ভিস বা প্রোডাক্ট আপনি প্রোমোট করবেন। সেই সকল সার্ভিস এবং প্রোডাক্ট গুলোর প্রমোশনের জন্য লিংকটি কমন থাকবে। অর্থাৎ এই প্রোডাক্ট গুলো কিন্তু সব সময় পরিবর্তিত হতে থাকবে না। যেমন- আপনি যদি কোন কোম্পানীর হোস্টিং নিয়ে কাজ করেন।

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিংয়ে শুধুমাত্র ওই কোম্পানির হোস্টিং প্রমোশনের একটি লিঙ্ক থাকবেন। লিংকটা কিন্তু নির্দিষ্ট সময় পরপর পরিবর্তন হবে না। কিন্তু আপনি যদি সিপিএ মার্কেটিং করেন। এক্ষেত্রে আপনাকে যেকোন একটি অফার নির্বাচন করতে হবে। অফারটির কিছুদিন পর পর পরিবর্তন হতে পারে। যেমন আপনি যদি কোন একটা সফটওয়্যারের প্রমোশন করার জন্য সিপিএ লিংক ব্যবহার করেন। এক্ষেত্রে ওই সফটওয়্যার যিনি সিপিএ মার্কেটিংয়ে প্রমোশনের জন্য পাবলিশ করেছেন। তিনি একটা নির্দিষ্ট সময়ের জন্য বিজ্ঞাপন দিয়ে থাকেন।

সেক্ষেত্রে যদি তিনি ৩০ দিনের জন্য একটি বিজ্ঞাপন প্রচারের জন্য ওয়েবসাইটে সফটওয়্যারের লিঙ্কটি প্রমোট করার জন্য সরবরাহ করে। অবশ্যই ৩০ দিন পর্যন্ত আপনি এই লিংক প্রমোট করতে পারবেন। ৩০দিন পরে এই লিংকটা আর কোন কাজ করবে না। অর্থাৎ এরপরে যদি আপনার লিংকের মাধ্যমে কোনো সেলস জেনারেট হয় অথবা সফটওয়্যারটি ডাউনলোড করে। সেক্ষেত্রে আপনি কোন কমিশন পাবেন না। কিন্তু এফিলিয়েট মার্কেটিংয়ের ক্ষেত্রে আপনি যে লিঙ্কটি প্রমোট করবেন সেই লিংকটি আপনি আজীবন প্রমোট করতে পারবেন।

যেমন – কোন কোম্পানির যদি আপনি হোস্টিং লিংকটি প্রমোট করেন। সেই প্রকৃত লিংকটি আপনার ব্লগ সাইটে যদি আপনি এফিলিয়েট লিংক হিসেবে ব্যবহার করেন। সেই লিঙ্ক থেকে যতবার এই হোস্টিং ক্রয় করবে। ততোবারই আপনি কমিশন পেতে থাকবেন। এটা নির্দিষ্ট সময় কাল প্যাসিভ ইনকাম হিসেবে কাজ করবে। কিন্তু সিপিএ মার্কেটিং প্যাসিভ ইনকাম হিসেবে কাজ করে না। এটা একটি ইনকাম হিসেবে ধরা হয়।

Advertisement

সিপিএ তে যতগুলো একশন সংগ্রহ করবেন এবং এখান থেকে অ্যাকশন জেনারেট করতে পারবেন। ততোগুলোর জন্য আপনি এখান থেকে কমিশন পেতে অর্জন করতে পারবেন। এরপরে কিন্তু আপনার কমিশন পাওয়া বন্ধ হয়ে যাবে। কিন্তু অ্যাফিলিয়েটের ক্ষেত্রে কমিশন নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে বন্ধ হয়ে যাবে না। আপনি আজীবন এখান থেকে আপনার নির্বাচিত পণ্যের উপর নির্দিষ্ট পরিমাণ কমিশন পেতে থাকবেন।

সিপিএ মার্কেটিং কি?

CPA মার্কেটি এর পূর্ণ অর্থ হচ্ছে Cost Per Action। সহজভাবে বুঝাচ্ছি। মনে করুন, আপনার পণ্যের প্রচার ও নতুন পণ্যের খবর ক্রেতাদের কাছে পৌঁছানোর জন্য আপনি চাচ্ছেন টার্গেট করা ক্রেতাদের কাছে ই-মেইল পাঠাবেন। কিন্তু ই-মেইল পাঠানোর জন্য অবশ্যই আপনার প্রয়োজন টার্গেট করা পর্যাপ্ত ই-মেইল আইডি। এখন আপনি আপনার টার্গেট করা ইমেইল ঠিকানা সংগ্রহ করার জন্য অন্য একটা কোম্পানিকে দায়িত্ব দিয়েছেন।

মনে করুন, আপনি CPAGrip কে দায়িত্ব দিয়েছেন। এর জন্য আপনি CPAGrip কে পেমেন্ট করবেন ১০০ ডলার। এখন CPAGrip একটি ক্যাম্পেইন চালু করলো আপনার টার্গেট করা ক্রেতাদের ইমেইল ঠিকানা সংগ্রহ করার জন্য। এই ক্যাম্পেইনটি যারা প্রচার করবে, CPAGrip তাদের কে ১০০ ডলার থেকে ৫০ ডলার ভাগ করে দিবে।

যেমন ধরুন, আপনি আপনার টার্গেট করা ৭ হাজার ক্রেতাদের ই-মেইল ঠিকানা চাচ্ছেন। এখন আপনি সেই সাত হাজার ইমেইল ঠিকানা সংগ্রহ করার দায়িত্ব CPAGrip কে দিয়ে দিলেন। CPAGrip এই সাত হাজার ইমেইল ঠিকানা সংগ্রহ করতে মার্কেটারদের কাজ দিবে। একজন মার্কেটার যতগুলো মেইল সংগ্রহ করতে পারবেন, তাকে তত বেশি পেমেন্ট করা হবে।

সিপিএ মার্কেটিং কি এবং CPA Marketing এর সম্পূর্ণ গাইডলাইন
সিপিএ মার্কেটিং কি এবং CPA Marketing এর সম্পূর্ণ গাইডলাইন

এখন আমরা যদি সহজ ভাষায় সিপিএ এর সংজ্ঞা জানতে চাই। আমরা বলতে পারি। কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের জন্য অল্প সময়ের মধ্যে নির্ধারিত লিড বা সেরস সংগ্রহ করা কে সিপিএ মার্কেটিং বলে।

আমরা এখানে উদাহরণ হিসেবে আপনাকে ইমেইল কানেকশনের উদাহরণ দিয়ে বুঝিয়েছি। এটা হতে পারে অন্য কোন সফটওয়্যার ইন্সটল করার জন্য লিড জেনারেশন করা, অথবা কোন কোম্পানির বিভিন্ন প্রয়োজনীয় তথ্য সংগ্রহ করা। যেমন কোম্পানির সাথে কিভাবে যোগাযোগ করতে পারে? সে বিষয়ে অথবা আপনাকে এমন কিছু ই-কমার্স কোম্পানির তথ্য সংগ্রহ করতে হবে? যারা শুধুমাত্র টি-শার্ট নিয়ে কাজ করে থাকে।

এই ধরনের সবকিছুই হচ্ছে লিড জেনারেশনের অন্তর্ভুক্ত। কোনো বিক্রেতার এমন একটা প্রোডাক্ট আছে। যে প্রোডাক্টটা ১০০ পিস তৈরি করেছে। এই ১০০ পিস বিক্রি করার জন্য সিপিএ মার্কেটিংয়ে সে তার প্রোডাক্টের অফারটা সাবমিট করতে পারে। একজন বিজ্ঞাপন দাতা সিপিএ কোম্পানিকে যত পরিমাণ কমিশন দিবে। সেই কমিশনটা মার্কেটপ্লেসের মালিক এবং যারা সিপিএ মার্কেটার রয়েছে তাদের সাথে ভাগ করে নিবেন।

এই সংজ্ঞাটাই হচ্ছে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং ও সিপিএ মার্কেটিংয়ের প্রধান পার্থক্য। সিপিএ কাজের জন্য নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে লিড সংগ্রহ করতে হয়। এটা একটা নির্দিষ্ট সময়ের জন্য ক্যাম্পেইন হিসেবে কাজ করে। আর অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিংয়ের জন্য নির্দিষ্ট কোনো সময় দেওয়া হয় না। এখান থেকে কমিশন বা টাকা ইনকাম করতে আপনাকে কেউ জোর করবেনা। আপনি যতগুলো একশন পাবেন, ততোগুলোর উপর নির্ভর করে আপনাকে কমিশন প্রদান করা হবে।

CPA থেকে কিভাবে কমিশন পাওয়া যায়?

Advertisement

মনে করুন, আপনি একটি ক্যাম্পেইনের প্রচার করছেন। নিজের ইচ্ছে মতো বিভিন্ন প্লাটফর্মে এটার প্রচার করতে পারবেন। প্রচার করার জন্য কোনো লিমিট নাই। তবে কোনভাবেই স্পামিং করা যাবে না। এটা কেউ পছন্দ করে না।

Advertisement

ধরুন, আপনার শেয়ার করা লিংকটি ১০০০ জন ভিজিট করলো। ১০০০ জন ভিজিটর থেকে ৮০০ জন ভিজিট করে বের হয়ে গেল। এবং ২০০ জন এই ক্যাম্পেইনে ইমেইল ঠিকানা সাবমিট করলো৷

সুতরাং আপনাকে এই ২০০ টি লিড জেনারেট করার জন্য CPAGrip আপনাকে পেমেন্ট করবে। আবার মনে করুন, কেউ ওয়েবসাইটের ভিজিটর পাওয়ার জন্য ক্যাম্পেইন অর্ডার করলো। এক্ষেত্রে শুধুমাত্র ভিজিটর আসলেই হবে। মূলত অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিংয়ের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ হচ্ছে CPA মার্কেটিং। সিপিএ মার্কেটিং জানলে এফিলিয়েট বিজনেস আপনার জন্য খুবই সহজ হবে।

আমি আরও একটি সহজ উদাহরণ দেয়। ধরুন,  কোন একটি সফটওয়্যার কোম্পানি তাদের সফটওয়্যার ডাউনলোড করার অফার দিল। তারা অফার দিল যে, তাদের তৈরি করা সফটওয়্যারটি ব্যবহারকারীদের ডাউনলোড করিয়ে দিতে পারলে প্রতিটি ডাউনলোডের 2$ ডলার পেমেন্ট করা হবে। এখন আপনি যদি কাউকে সফটওয়্যারটি একবার ডাউনলোড করিয়ে দিতে পারেন, তাহলে এর জন্য আপনাকে $2 ডলার পেমেন্ট করবে। এভাবে যতবেশি ডাউনলোড করিয়ে দিতে পারবেন, ততবেশি আয় করতে পারবেন।

CPA মার্কেটিংয়ে কি কি অফার পাওয়া যায়?

সিপিএ মার্কেটিংয়ে যে সকল পণ্য বা সার্ভিস প্রমোট করার জন্য দেওয়া হয়। সেগুলোকে আমরা অফার বলে থাকি। যে সকল পণ্যের মধ্যে বেশি কমিশন দেওয়া হয়। তার মধ্যে অফারের পরিমাণ বেশি এটা আমরা সহজেই বুঝতে পারি। সিপিএ মার্কেটপ্লেসের মধ্যে অনেক ধরনের সার্ভিস এবং প্রোডাক্ট রয়েছে। যেগুলো আমরা প্রমোট করে কমিশন জেনারেট করতে পারি। আপনাদের ইচ্ছা মত পছন্দের যেকোন ধরনের প্রোডাক্ট এখান থেকে প্রমোট করতে পারবেন।।

সিপিএ মার্কেটিং এর অফার গুলো প্রমোট করার সময় আপনাকে আপনার ট্রাফিক সোর্সের উপর নির্ভর করে পণ্য নির্বাচন করতে হবে। যেমন ধরুন, আপনার ট্রাফিক বেশিরভাগ ডিজিটাল পণ্য পছন্দ করে। অর্থাৎ ডোমেইন-হোষ্টিং, সফটওয়্যার, ইত্যাদি বিষয়গুলো কে পছন্দ করে থাকেন। এবং এধরনের পণ্যগুলো প্রমোট করলে তারা এখানে রেজিস্ট্রেশন করবে বা ডাউনলোড করবে, অথবা ক্রয় করবে।

যদি আপনি তাদের কাছে কসমেটিক পণ্য অফার করেন অথবা কাপড় অফার করেন। সেক্ষেত্রে কিন্তু তারা এগুলো ক্রয় করবে না। এজন্য আপনাকে প্রথমে নির্বাচন করতে হবে। আপনার ট্রাফিক সোর্স কি ধরনের সার্ভিস গুলো পছন্দ করে। আপনি তাদের পছন্দের উপর নির্ভর করেই সিপিএ মার্কেটিং থেকে অফারগুলো নির্বাচন করবেন। এবং সে অফারগুলো আপনি প্রমোট করবেন। যেনো আপনি দ্রুত এখান থেকে কমিশন আদায় করতে পারেন। আপনি এভাবে যদি কাজ করেন, তাহলে এখান থেকে ভালো কমিশন আপনি তৈরি করতে পারবেন।

সিপিএ মার্কেটিংয়ের সফলতা পাবার জন্য ট্রাফিক সোর্স হচ্ছে খুবই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। আপনার ট্রাফিক গুলো যদি কার্যকর ট্রাফিক না হয়, তাহলে কিন্তু আপনি এই প্রফেশন থেকে ভাল প্রফিট আদায় করতে পারবেন না। এজন্য যারা সঠিক পণ্য বা সেবা নির্বাচন করতে পারে না। তারা সিপিএ মার্কেটিং থেকে সফলতা অর্জন করতে পারে না। এজন্য তারা এটাকে অনেক সময় ভুল একটা উপায় বলে থাকে। এটা আসলেই অনেক মজার একটা উপায় অনলাইন থেকে অর্থ উপার্জন করার জন্য। যদি আপনি বিষয়টাকে সঠিকভাবে বুঝতে পারেন।

এখানে আপনি ভালো পরিমাণ কমিশন তখনই উপার্জন করতে পারবেন, যখন আপনি আপনার ট্রাফিক গুলোকে মনিটাইজ করতে পারবেন। আপনার অনেকগুলো ট্রাফিক আছে। যারা মূলত অনলাইন থেকে কেনাকাটা আগ্রহী না। অথবা আপনি কোন একটা ইমেইল সাবস্ক্রাইব করতে বললেন অথবা কোন একটা সফটওয়্যার ডাউনলোড করতে বলেন। সফটওয়্যারটা তাদের প্রয়োজন হয় না। এক্ষেত্রে তারা কিন্তু তাদেরকে মনিটাইজ করার জন্য আপনাকে তাদের চাহিদা সম্পর্কে জানতে হবে। এবং তাদেরকে এমন একটি কমিউনিটিতে আপনি যুক্ত করতে পারেন।

যার মাধ্যমে আপনি তাদেরকে পুনরায় টার্গেট করতে পারেন। এবং তাদের চাহিদাগুলোকে বুঝতে পারবেন। যেমন – ফেসবুকে যারা সময় ব্যয় করে তারা কি উদ্দেশ্যে ভিজিট করে? তারা কি কি চাহিদার উপর বেশি মনোযোগী? সে বিষয়টি আপনাকে বুঝতে হবে। আর যদি গুগলে আপনি কোন সিপিএ মার্কেটিং এর প্রোডাক্ট প্রচার করেন। এক্ষেত্রে কোনো ট্রাফিক কি জিনিসের প্রতি বেশি আগ্রহী। সে বিষয়টা আপনাকে বুঝতে হবে। তাহলে আপনি সিপিএ মার্কেটিং থেকে দ্রুত সফলতা অর্জন করতে পারবেন।

Advertisement

CPA মার্কেটিংয়ে বিভিন্ন ধরনের অফার পাওয়া যায়:

এবার চলুন আমরা সিপিএ মার্কেটিং এর বিভিন্ন অফার সম্পর্কে জেনে নিই। সিপিএ মার্কেটিংয়ে আপনি আনলিমিটেড বিভিন্ন বিষয়ে অফার পাবেন। এখানে আমরা কিছু কমন অফারের বিষয়ে আপনাদের পরিচয় করিয়ে দিব। আমরা আপনাদেরকে আগেই বলেছি। কারণ, এখানে আপনি কাপড়, ইলেকট্রনিক্স, সফটওয়্যার, ইত্যাদি বিভিন্ন সার্ভিস ও পণ্যের অফার পাবেন। যেগুলো ক্রেতাদের অনেক বেশি চাহিদা সম্পন্ন।

আপনি যদি আপনি এধরনের অফার গুলো প্রচার করতে পারেন, তাহলে সিপিএ মার্কেটিংটা আপনার জন্য অনেক সহজ মনে হবে। আমরা যদি বিভিন্ন অফার সম্পর্কে জানতে চাই, তাহলে অবশ্যই আমাদেরকে সিপিএ মার্কেটিংয়ের ওয়েবসাইট গুলো ভিজিট করতে হবে। আমরা নিচে এমন কিছু জনপ্রিয় ওয়েবসাইট সম্পর্কে তথ্য দিয়েছি। এগুলো থেকে আপনারা ভিজিট করে পছন্দের যেকোন কোম্পানিতে আপনি রেজিস্ট্রেশন করে সিপিএ মার্কেটিং শুরু করতে পারেন। আশা করি, সবগুলো তথ্য আপনাদের কে অনেক বেশি সাহায্য করবে। তবে আপনারা এই বিষয়টাকে পরিপূর্ণভাবে বুঝার পর এই কাজটা শুরু করার চেষ্টা করবেন।

নিচে আমরা কমন কমন কিছু সিপিএ মার্কেটিংয়ের কাজের নাম এবং এদের কাজ সম্পর্কে সহজ ভাবে আলোচনা করার চেষ্টা করেছি। যেন অফার গুলো সম্পর্কে আপনারা সহজে বুঝতে পারেন। কোন ধরনের অফার গুলো আপনার জন্য সবচেয়ে বেশি মানানসই হবে? সেই অফার গুলো কে যেন আপনি সঠিকভাবে নির্বাচন করতে পারেন। সেজন্য আমরা নিচের অফারগুলো আপনাদেরকে পরিচয় করানোর জন্য আলোচনা করেছি।

PPD = Pay per download:

এই অফার গুলোর কাজ হচ্ছে সফটওয়্যার ডাউনলোড করা, গেমসের অ্যাপ ডাউনলোড করা, ইত্যাদি। যারা প্রফেশনাল মার্কেটার তারা এগুলোর জন্য বিনিয়োগ করে ট্রাফিক সোর্স তৈরি করে।

সাধারণত গেমস ও কাজের সফটওয়্যার গুলোর মার্কেটিং প্রয়োজনীয়। এজন্য এধরণের ডিজিটাল প্রোডাক্টসের জন্য প্রফেশনালরা ব্যক্তিগত সোর্স তৈরি করে। এক্ষেত্রে একটা সফটওয়্যার ও গেমস ডাউনলোড সাইট তৈরি করা যেতে পারে।

PPL = Pay per lead:

এই অফার গুলোর কাজ হচ্ছে বিভিন্ন ওয়েবসাইটে সাইন আপ, ইমেইল সাবমিট করা, সার্ভে করা, ইত্যাদি।

এগুলো খুব সহজ কাজ। যারা নতুন মার্কেটার সিপিএ কাজে যুক্ত হোন, তারা PPL দিয়ে শুরু করেন। আপনি তৃতীয় পক্ষের বিভিন্ন প্লাটফর্ম ব্যবহার করে প্রচার করতে পারবেন। তবে নিজের ব্যক্তিগত প্লাটফর্ম থাকলে সরাসরি নিজের আয় করার পাশাপাশি বিভিন্ন ইউজারদের কাছ থেকেও বিজ্ঞাপনের টাকা দাবি করতে পারবেন।

PPS = Pay per sale:

এই অফার গুলোর কাজ হচ্ছে বিভিন্ন পণ্যের বিক্রি বৃদ্ধি করা। পণ্য ডিজিটাল বা ফিজিক্যাল হতে পারে। দুইরকমের পণ্য Pay Per Sale হিসেবে যুক্ত করা হয়।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে ব্যবসায়ীরা এসব ধরনের প্রোডাক্ট বিক্রয়ের জন্য যুক্ত করেন।

Advertisement

এছাড়া CPA মার্কেটিংয়ে আরও বিভিন্ন অফার রয়েছে: ডেটিং, ই-কমার্স, অর্থনৈতিক, রিসার্চ, এসোসিয়েট, ইত্যাদি।

সিপিএ মার্কেটিং কি কেন করবেন?

এসিপিএ মার্কেটিং কেন করবেন সেই বিষয়টি আপনাকে আমি না বলাটাই ভালো হতো। কিন্তু যারা একদম নতুন আমার এই লেখাটি পড়তেছেন, তাদের জন্য কিছু ধারণা দিতেই হবে। না হয় আমি প্রথমেই বলেছিলাম। আপনারা যারা এই সিপিএ মার্কেটিং সম্পর্কে জানেন না। তারা টেনশনে থাকবেন যে, কেন CPA মার্কেটিং করবেন।

আমি এটা নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করে সময় নষ্ট করবোনা। তবে কয়েকটি বিষেশ দিক সম্পর্কে জানিয়ে দেব। যেমন:

  • এটার চাহিদা কখনও কমবে না।
  • এটার জন্য কোন সমস্যা নেই।
  • টাকা ইনভেস্ট না করেও এটা করা যায়।
  • ফ্রী পদ্ধতি ও প্রিমিয়াম পদ্ধতির সুবিধা আছে।
  • বেশি কাজ করতে হয় না।
  • সময় কম প্রয়োজন হয়।
  • আয় করার একাধিক পদ্ধতি আছে।
  • মোবাইল দিয়েও কাজ করা যায়, ইত্যাদি।

সিপিএ মার্কেটিং থেকে কি রকম আয় করা সম্ভব?

এটার উত্তর দেওয়ার জন্য আমি আপনাকে একটা প্রশ্ন করতে চাই। তা হচ্ছে: সিপিএ মার্কেটিং থেকে আপনি কতটা আয় করতে চান?

আসলে সিপিএ মার্করটিং করে কত টাকা আয় করা যায়, তা সঠিক বলতে না পারলেও অবশ্যই একটা সঠিক ধারণা দিতে পারবো। আপনি যদি আমেরিকান বা অস্ট্রেলিয়ান কোন নিম্নমানের ক্যাম্পেইন প্রচার করেন, তাতে যদি দিনে ১০টি “Action” আসে। তাহলে একদিনে আপনার কমপক্ষে ১০ ডলার আয় হবে। এটা সর্বনিম্ন আয় হবে। এর থেকে কম হবেনা।

আবার এমন হাজার হাজার প্রোডাক্ট রয়েছে যেগুলোতে একটা কার্যকর অ্যাকশন আসলেই $100+ আয় করা যায়। এটা আসলে নির্ভর করে আপনি কি ধরনের প্রোডাক্ট নিয়ে কাজ করছেন তার উপর।

CPA Marketing এর অফারগুলো কোথায় পাবেন?

বর্তমানে সারাবিশ্বে প্রায় ৫০০+ CPA marketing এর মার্কেটপ্লেস রয়েছে। বর্তমান বিশ্বের অন্যতম ও সবচেয়ে বড় সিপিএ মার্কেটপ্লেস গুলো হলো:

Neverblue, Maxbounty, Affiliaxe, Peerfly, A4D, Clickbooth, Clickdealer, ইত্যাদি।

যারা আজকে নতুন আমার গাইডলাইন পড়ে শুরু করতে যাচ্ছেন। আপনারা নিচের মার্কেটপ্লেস গুলো দিয়ে কাজ শুরু করুন। নতুনদের জন্য এগুলোতে কাজ করা সহজ। এগুলো সবচেয়ে ভালো এবং সহজে আবেদন গ্রহণ করে:

Advertisement
  • Cpalead
  • Cpagrip

মোবাইল দিয়ে কাজ করতে কয়েকটি মার্কেটপ্লেস:

  • ClicksMob
  • ClickDealer
  • GoWide

নতুন যারা এই কাজটি শুরু করবেন। আমি জানি তাদের মার্কেটপ্লেস সম্পর্কে কোনো অভিজ্ঞতা থাকবে না। এজন্য আপনাদের অভিজ্ঞতা না থাকার কারণে, কোন মার্কেটপ্লেসকে সবচেয়ে সেরা মার্কেটপ্লেস তা নির্বাচন করতে আপনাদের কষ্ট হবে। এজন্য আপনাদেরকে অবশ্যই বিভিন্ন টুলস এর সাহায্য নিয়ে সেরা মার্কেটপ্লেস রিসার্চ করতে হবে। যদি আপনি আপনার জন্য উপযুক্ত মার্কেটপ্লেস নির্বাচন করতে পারেন, তাহলে সিপিএ মার্কেটিং আপনার জন্য আরো ভালো ভাবে সহজ হয়ে যাবে। এক্ষেত্রে আপনি যে কাজটি করতে পারেন আমরা এখানে একটি ওয়েবসাইট লিংক দিয়ে দিচ্ছি।

যে ওয়েবসাইটে আপনি ভিজিট করে সিপিএ মার্কেটিংয়ের মার্কেটপ্লেসগুলোর রিভিউ যাচাই করে আপনি আপনার জন্য একটা মার্কেটপ্লেস নির্বাচন করতে পারেন। এখানে আমরা Affpaying.com নামের একটি ওয়েবসাইট আপনাদের জন্য দিয়ে দিয়েছি। এই ওয়েবসাইটে ভিজিট করে আপনাকে মার্কেটপ্লেসগুলোর রিভিউ দেখতে হবে। অর্থাৎ যে মার্কেটপ্লেস সম্পর্কে মানুষ পজিটিভ রিভিউ দিয়েছে। সে মার্কেটপ্লেসে অবশ্যই সবার জন্য বিশ্বস্ত এবং মার্কেটপ্লেসে কাজ করে এখান থেকে ভালো রেজাল্ট পাবেন। এজন্য অবশ্যই আপনাকে একটা বিশ্বস্ত প্লাটফর্মে গিয়ে কাজ করতে হবে। যেন আপনার কাজের পারিশ্রমিক আপনি খুব সহজে সংগ্রহ করতে পারেন।

সিপিএ মার্কেটিং এর জন্য অফার সিলেকসন এবং এনালাইসিস পদ্ধতি:

আপনি বিভিন্নভাবে অফার সিলেকসন এবং এনালাইসিস করতে পারেন। খুব সহজে করতে চাইলে সরাসরি আপনার একাউন্ট থেকে অফার সিলেকসন করতে পারেন। যদি চান আপনি বিভিন্নভাবে বিচার বিশ্লেষণ করে অফার সিলেকশন করবেন, তাহলে Offervault, Affplus, oDigger এর সাহায্য নিতে পারেন। এই ওয়েবসাইট গুলোতে সিপিএ অফারগুলোর বিস্তারিত জানা যায়।

CPA মার্কেটিং অফার কিভাবে প্রোমোট করবেন?

আপনি যে মার্কেটপ্লেস গুলোতে কাজের জন্য আবেদন করেছেন। এগুলোতে যদি আপনার আবেদনটি গ্রহণ করে। তখন আপনি আপনার একাউন্টটি লগিং করলে আপনার অফার গুলো দেখতে পাবেন। এখানে প্রতি অফারের জন্য একটি ইউনিক লিংক পাবেন৷ লিংকটি আপনাকে বিভিন্ন মাধ্যমে প্রচার করতে হবে।

যেমন:

আমি আপনাদের একটা রিকুয়েষ্ট করবো। প্রফেশনাল কাজ করার জন্য ও সহজে সিপিএ মার্কেটিংয়ে সফল হওয়ার জন্য। অবশ্যই আপনি আপনার নিজের একটা ওয়েবসাইট করুণ। আপনারা আপনাদের পরিচিত যে কারো মাধ্যমে ওয়েবসাইট তৈরি করিয়ে নিতে পারেন৷ তবে আপনি যদি চান আমাদের মাধ্যমে তৈরি করতে, তাহলে এখানে যোগাযোগ করুন।

এটা অবশ্যই মনে রাখবেন, CPA কাজ করার জন্য ওয়েবসাইট থাকা বাধ্যতামূলক না। যেহেতু অনেকগুলো মার্কেটপ্লেস কাজ করার অনুমোদন দেওয়ার আগে নিজের একটা ব্যক্তিগত ওয়েবসাইট আছে কিনা তা যাচাই করে। এজন্য আমি ওয়েবসাইট করার পরামর্শ দিলাম। ওয়েবসাইট করার জন্য অনেক টাকা খরচ করার কোনো প্রয়োজন নেই। বর্তমানে খুব কম টাকা দিয়ে সাইট তৈরি করা যায়। একটা নিজের সাইট থাকলে আরও অনেকগুলো সুবিধা পাবেন।

কিভাবে CPA মার্কেটিং এর টাকা তুলবেন?

প্রতিটি মার্কেটপ্লেসের পেমেন্ট করার পদ্ধতি বিভিন্ন রকম থাকে। তবে বেশিরভাগ মার্কেটপ্লেসের পেমেন্ট PayPal, Payneer এবং  ব্যাংক ট্রান্সফারের মাধ্যমে নিতে পারেন। বাংলাদেশে এখনও PayPal সাপোর্ট করে না। তাই আপনারা Payoneer ও ব্যাংকের মাধ্যমে টাকা নিতে পারেন।

সিপিএ মার্কেটিং কি এর সতর্কতা:

Advertisement

মনে রাখবেন, প্রতারকের জায়গা কোথাও নেই। সুতরাং দ্রুত আয় করার জন্য নিজের অফার নিজে কমপ্লিট করার চেষ্টা করবেন না। আপনি এখানে যতরকমের চালাকি করেন না কেন। এরা কোন না কোনভাবেই আপনাকে ধরে ফেলবে। কারণ, এই সাইটগুলো খুবই সিকিউরিটি সম্পন্ন হয়ে থাকে।

Advertisement
  1. সিপিএ মার্কেটিং করতে কি কি লাগে?

    সিপিএ মার্কেটিং করার জন্য একটি ভালো মানের কম্পিউটার, ইন্টারনেট সংযোগ, এবং ডিজিটাল মার্কেটিং সম্পর্কিত সাধারণ জ্ঞান প্রয়োজন হয়। আপনার যদি মার্কেটিং সম্পর্কে ভালো ধারনা থাকে, তাহলে আপনি দক্ষতার সাথে সিপিএ মার্কেটিং থেকে ভালো পরিমাণ উপার্জন করতে পারবেন।

  2. সিপিএ মার্কেটিং কৌশল

    সিপিএ মার্কেটিং করার জন্য অতিরিক্ত কোনো কৌশলের প্রয়োজন নাই।  আপনি যদি ডিজিটাল মার্কেটিং সম্পর্কে সাধারণ জ্ঞান অর্জন করেন। তাহলে আপনি সিপিএ মার্কেটিং শুরু করতে পারেন।

  3. সিপিএ মার্কেটিং কোর্স

    সিপিএ মার্কেটিং করার জন্য অনলাইনে অনেকগুলো কোর্স বর্তমানে পাওয়া যায়। আপনি যদি শিখতে চান তাহলে ইউটিউব থেকে ফ্রি কোর্স করে সিপিএ মার্কেটিং শিখতে পারেন।

এখনও কোনকিছু না বুঝলে কমেন্ট করুণ অথবা এখানে প্রশ্ন করুণ।

Advertisement

md thouhidul islam tawhid seo and digital marketing

একজন ইলেক্ট্রিক্যাল বিষয়ে ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে সবসময় টেকনোলজি কে অগ্রাধিকার দিতে ভালোবাসি। প্রযুক্তির সাথে এগিয়ে যেতে ও নিজেকে সবসময় আপডেট রাখার জন্য নিয়মিত প্রযুক্তিগত জ্ঞান নিজে অর্জনের পাশাপাশি অন্যদের সাথে শেয়ার করাতে ভালো লাগে। সময় পেলে প্রযুক্তি, ব্যবসা, মার্কেটিং বিষয়ে লিখতে চেষ্টা করি। পেশা যাই হোক, তা হতে লাভবান হতে চাইলে ব্যবসা ও মার্কেটিং জ্ঞান আবশ্যক।

নিচের বাক্সে আপনার মতামত লিখে জানান।

error: Content is protected !!