Agribusiness Ideas: লাভজনক স্মার্ট কৃষি ব্যবসা আইডিয়া

ডিজিটাল হওয়ার মানে হচ্ছে আমাদের দৈনন্দিন কাজকে ডিজিটাল করা। তাই সময়ের সাথে তাল মিলিয়ে কৃষি ব্যবসা আইডিয়া (Agribusiness Ideas) নিয়ে আপনাদের কিছু ধারণা দিতে চাই।

আমার কাছ কৃষি কাজ অনেক মজার এবং প্রিয় কাজ। এই কাজকে সত্যিই আমি অনেক ভালোবাসি।

আমি ছোটবেলা থেকে পড়াশোনার পাশাপাশি বাড়ির আশেপাশে ছোট ছোট কৃষি কাজ করতাম।

তবে এখন জীবনের গতি বৃদ্ধি করতে বাড়ি ছেড়ে শহরে চলে আসায় আগের মতো কৃষি কাজ করা হয়না।

Agribusiness Ideas লাভজনক স্মার্ট কৃষি ব্যবসা আইডিয়া (2)
Agribusiness Ideas

যাইহোক, আজকের লেখাটি তাদের জন্য যারা আমার মতো কৃষি প্রেমিক। আমি কৃষকদের অনেক বেশি সম্মান করি। মূলত এরাই হচ্ছে বাংলাদেশ।

এখন হয়ে যাক দারুণ কিছু স্মার্ট কৃষি ব্যবসা আইডিয়া (Agribusiness Ideas) নিয়ে আলোচনা।

০১. ছাদের উপর চাল কুমড়া চাষ কৃষি ব্যবসা আইডিয়া:

শহর হোক বা গ্রাম। আপনি আপনার বাড়ির ছাদের উপর চাল কুমড়া চাষ করে লাভবান হতে পারেন। চাল কুমড়ার চাহিদা বাংলাদেশ এবং দেশের বাহিরে প্রচুর চাহিদা রয়েছে।

এই মজাদার ও ভিটামিন যুক্ত খাবার দেশের মানুষের চাহিদা পূরণ করতে প্রচুর পরিমাণ চাষ করা প্রয়োজন। কিন্তু চাহিদার তুলনায় এটি খুব কম চাষ করা হয়।

তাই আপনি আপনার বাড়ির ছাদকে ব্যবহার করে হতে পারেন লাভবান সফল উদ্যোক্তা।

সবচেয়ে মজার বিষয় হচ্ছে এই মজার কৃষি কাজটি করতে আপনাকে বেশি টাকা বিনিয়োগ করতে হবে না।

আপনার ভালো অভিজ্ঞতা থাকলে ২০০ থেকে ৫০০ টাকা বিনিয়োগ করে এই ব্যবসা শুরু করতে পারেন। ৫০০ টাকা বিনিয়োগ করে আপনি ৫০০০ টাকা মুনাফা পাবেন। এটার জন্য কোন সন্দেহ নেই।

০২. বায়োফ্লক পদ্ধতিতে মাছ চাষ:

বাড়ির ছাদের উপর বায়োফ্লক পদ্ধতিতে মাছ চাষের কথা কোথাও শুনেছেন কি? যদি না শুনে থাকেন কোন সমস্যা নেই। আপনি ইউটিউবে বায়োফ্লক নামটা লিখে সার্চ করুন।

বায়োফ্লকের সাথে পরিচিত হওয়ার পাশাপাশি কিভাবে এই পদ্ধতিতে মাছ চাষ করতে হবে তাও শিখে যাবেন।

আপনি যদি আপনার বাড়ির ছাদের উপর এই পদ্ধতিতে মাছ চাষ করেন। তাহলে আপনার নতুন কৃষি ব্যবসা আইডিয়া বাস্তবায়নের পাশাপাশি আপনার বাড়ির ছাদও টেকসই হবে।

অনেকের কাছে ভুল ধারণা ছাঁদে এসব কাজ করলে ছাঁদ নষ্ট হয়ে যেতে পারে।

কিন্তু তা একদম ঠিক নয়। বরং আপনার ছাঁদ আরও বেশি শক্তিশালী হবে চাষের পরিত্যক্ত পানি গ্রহণ করে।

বায়ূফ্লক পদ্ধতিতে মাছ চাষের বিজনেস করে মাস হিসেবে গড়ে ২০ হাজার থেকে লাখ টাকা আয় করা সম্ভব। এটা নির্ভর করবে আপনার চাষের পরিমাণ ও অ চেষ্টার উপর।

০৩. কবুতরের লাভজনক ব্যবসা:

সাধারণত আমরা সুন্দরের জন্য কবুতর পালন করে থাকি। তবে কবুতরের মাংসের স্বাদের কথা না বলাই চলে। যে একবার কবুতরের মাংসের স্বাদ নিয়েছে সে বার বার খেতে চাইবে।

শরিরের রক্তের পরিমাণ বৃদ্ধি করতে এই মাংসের ভূমিকা অপরিসীম।

আমাদের রক্ত শূন্যতা দেখা দিলে ডাক্তার আমাদের কবুতরের মাংস খাওয়ার নির্দেশ দেন।

বর্তমানে সর্বনিম্ন একজোড়া কবুতরের দাম ৮০০ থেকে ১,০০০ টাকা।

আর সর্বোচ্চ আমার জানামতে ১০ লাখ থেকে ১৫ লাখ টাকার কবুতর রয়েছে।

ছোট্ট পরিসরে ঘরের পাশে বা বাড়ির ছাদের উপর ২০ থেকে ৫০ জোড়া কবুতরের চাষ করতে পারলে।

মানে ১৫,০০০ থেকে ৩০,০০০ হাজার টাকা চিন্তা ছাড়া ইনকাম করা সম্ভব।

০৪. বিজ সরবরাহ ব্যবসা আইডিয়া:

আপনি গ্রামের বিভিন্ন ফল ও ফুলের বিজ সংগ্রহ করতে পারেন। আপনি এটাকে সুন্দর একটা বিজনেস হিসেবে চালিয়ে যেতে পারেন।

কম টাকায় বিজ সংগ্রহ করতে তা প্যাকেট জাত করে ভালো লাভ করে বিক্রি করতে পারেন।

বর্তমানে শহর অঞ্চলে মানুষ ছাদে ফুল ও ফল চাষের জন্য ভালো বিজের সন্ধান করে।

এমন সুযোগটা ব্যবহার করে আপনি মানুষের মন জয় করার পাশাপাশি ভালো পরিমাণ মুনাফা অর্জন করতে পারেন।

০৫. গোলাপ চাষ করে অসাধারণ কৃষি ব্যবসা আইডিয়া:

যদি আপনি সিটি এলাকায় বাস করে থাকেন, তাহলে আপনি অনেক ভালো জানেন। বিভিন্ন অনুষ্ঠানের সময় একটা গোলাপের কত মূল্য।

আমার জানামতে শহরে একটা গোলাপ বিক্রি হয় সর্বনিম্ন ২০ থেকে ৫০ টাকার মধ্যে।

এমনও অনেক প্রমাণ আছে অনেক রাষ্ট্রীয় অনুষ্ঠানের দিন একটা গোলাপ ১০০ থেকে ২০০ টাকাও বিক্রি হয়।

প্রাথমিক পর্যায়ে শুরু করতে কিছু ভালো প্রজাতির গোলাপ ফুলের বিজ বা চারাগাছ সংগ্রহ করে।

আপনি বাসার সামনে বা ছাদের উপরে কোন চিন্তা ছাড়াই এই ব্যবসা শুরু করতে পারেন।

একটি ভালো গোলাপ ফুলের বাগান দাঁড় করাতে পারলে আপনি সুন্দর ব্যবসা করতে পারবেন।

সবশেষে বিডিব্লগের সমাপ্তি বার্তা:

আমরা সবসময় আমাদের ভিজিটরদের জন্য সঠিক ও ভালো কিছু করতে পছন্দ করি।

তাই আমরা আমাদের ব্লগের মাধ্যমে বিভিন্ন প্রয়োজনীয় বিষয় নিয়ে আলোচনার মাধ্যমে আপনাদের সাহায্য করতে চেষ্টা করি।

আজকের লেখাটি পড়ে আশাকরি আপনাদের কিছু কৃষি ব্যবসা আইডিয়া জানা হয়েছে।

HostGator Web Hosting

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here