মোবাইলে অনলাইনে আয় করুন | সেরা ইনকাম করার উপায়

Advertisement

মোবাইলে অনলাইনে আয় করার উপায় নিয়ে অনেকে জানতে চাই। এটা জানারও কোনো শেষ নেই। কারণ বর্তমানে মোবাইল ব্যবহারকীর সংখ্যা বেশি। ব্যক্তিগত কম্পিউটার ও ল্যাপটপ ৩০% মানুষের কাছে আছে। যারা মূলত অনলাইনে ব্যবসা ও চাকরি করেন, তাদের কাছে এসব বড় ডিভাইস রয়েছে। আরও ৭০% মানুষ যারা মোবাইল ব্যবহার করেন। তারা কিভাবে মোবাইলে অনলাইনে আয় করতে পারেন? এবিষয়ে আজকের আলোচনা।

মোবাইলে অনলাইনে আয় করতে কি কি লাগবে?

এটা খুবই সহজ উত্তর। মোবাইলের মাধ্যমে ইনকাম করতে চাইলে। আপনার একটা ভালো স্মার্টফোন লাগবে। পাশাপাশি অনলাইনে কানেক্টেড থাকতে ইন্টারনেট সংযোগ থাকতে হবে। মোবাইল ইন্টারনেট দিয়েও কাজ করা যাবে, তবে ব্রডব্যান্ড হলে সবচেয়ে ভালো হয়। আর অনলাইনে কাজ করতে বিভিন্ন ওয়েবসাইট ও অ্যাপে রেজিষ্ট্রেশন করতে একটা গুগল একাউন্ট প্রয়োজন হবে। এটা সম্পূর্ণ ফ্রি-তে ৩ মিনিটে তৈরি করতে পারবেন।

কি কি জানতে হবে টাকা আয় করতে?

সাধারণ কিছু দক্ষতা ও ধর্য্য থাকলেই অনলাইন থেকে মোবাইল দিয়ে ইনকাম করা সম্ভব।

নিচের স্ক্রিনশটটি দেখুন আমি গত ৫ দিনে শুধুমাত্র একটা ওয়েবসাইট থেকে এগুলো আয় করেছি। তাও আবার মোবাইল দিয়ে কাজ করে। এরকম অনেকগুলো সাইট রয়েছে। যেখানে কাজ করে মাসে ২০-৩০ হাজার টাকা সহজে আয় করা সম্ভব

এর জন্য শুধু লেগে থাকতে জানতে হবে। কারণ মোবাইল দিয়ে ইনকাম শুরু করলে প্রাথমিকভাবে খুব কম টাকা আয় হবে। এটা কাজ করতে করতে বৃদ্ধি পেতে থাকবে।

ধর্য্যের পরিক্ষা কতটুকু দিতে হবে?
মোবাইলে অনলাইনে আয় করুন ঘরে বসে! (2)
মোবাইলে অনলাইনে আয় করুন ঘরে বসে! (2)

এটা আপনার জন্য খুবই কঠিন উত্তর কিন্তু আমার জন্য সহজ। কারণ আমি ইতিমধ্যে এরকম অনেকগুলো সাইট থেকে ইনকাম করতে গিয়ে পরিক্ষা দিয়েছি।

এখন এসব ওয়েবসাইটের নাম উল্লেখ করছি না। কারণ একটু পরে আপনারা কাজ শুরু করার জন্য কিছু সাইটের নাম উল্লেখ করবো। যেগুলোতে মূলত আমি কাজ করেছি এবং করছি।

কাজ করে উপার্জিত টাকা কিভাবে হাতে পাব?

আপনার কষ্টের উপার্জিত টাকা হাতে পেতে অনলাইনে বিভিন্ন মাধ্যম রয়েছে। এটা নির্ভর করে সাইটের পরিচালকদের উপর।

কারণ প্রতিটি সাইটে ৩ থেকে ৫ মাধ্যমে পেমেন্ট করে থাকে। এক্ষেত্রে কয়েনবেস (তথা বিট কয়েন, ইথিরাম ইত্যাদি।) পেপাল ও পেওনিয়ার বেশি ব্যবহার করা হয়।

বাংলাদেশে পেপাল ব্যবহারের অনুমতি নেই।

তাই আমরা যে সকল সাইটে শুধুমাত্র পেপাল দিয়ে পেমেন্ট করে তাদের কাজ করবো না।

আপনি নিচের লিঙ্কগুলোতে ক্লিক করে একটা কয়েনবেস ও পেওনিয়ার একাউন্ট করতে পারেন সহজে:

  • CoinBase
  • Payoneer
  • PayPal


আপনি যদি একটু অভিজ্ঞ হয়ে থাকেন, তাহলে পেপালের মাধ্যমেও বাংলাদেশ থেকে ডলার নিতে পারবেন।

মোবাইলে অনলাইনে আয় করতে কিছু জনপ্রিয় ওয়েবসাইট তালিকা:

  1. cryptozilla
  2. wintub
  3. Neobux
  4. Adf .ly
  5. Best Change
  6. Ojooo
  7. ySense
  8. paidverts

মোবাইল দিয়ে অনলাইন থেকে আয়

মোবাইল দিয়ে অনলাইন থেকে আয় করার জন্য অনেক ধরনের উপায় রয়েছে। উপরে যে সকল ওয়েবসাইট গুলো আমরা আপনাদেরকে দিয়েছি। এই সকল ওয়েবসাইট থেকে যদি আপনি ইনকাম করতে চান, তাহলে আপনাকে একটু ট্রিকি হতে হবে। যদি আপনি একটু ট্রিকি না হন, তাহলে আপনি কিন্তু এই ধরনের ওয়েবসাইট গুলো থেকে অর্থ উপার্জন করতে পারবেন না। যারা নতুন অনলাইন থেকে অর্থ উপার্জন করতে চাই এবং নিজেদেরকে একটু টেকনিকাল বিষয়ে অভিজ্ঞ মনে করে থাকেন। তারা মূলত ওয়েবসাইটগুলো থেকে অর্থ উপার্জন করতে পারবেন।

তবে মোবাইল দিয়ে অর্থ উপার্জন করার জন্য আরো অনেকগুলো প্রফেশনাল উপায় রয়েছে। উপরে যেই ওয়েবসাইটগুলো আমরা দিয়েছি, সেগুলো কিন্তু অনলাইন থেকে অর্থ উপার্জন করার প্রফেশনাল কোন পদ্ধতি নয়। এগুলো থেকে আয় করতে অনেক ক্ষেত্রে আপনার সমস্যা হতে পারে। আপনি যে সময় এবং ইন্টারনেট এখানে ব্যবহার করবেন, তার চেয়ে কম টাকা এখান থেকে আপনার উপার্জন হতে পারে। এক্ষেত্রে আপনি যদি প্রফেশনাল পদ্ধতিতে অনলাইন থেকে মোবাইল দিয়ে অর্থ উপার্জন করতে চান, তাহলে অবশ্যই আপনাকে এমন কিছু কাজ করতে হবে। যেগুলো আপনার জন্য মানানসই এবং যেগুলোতে ভবিষ্যৎ রয়েছে। আমরা এমন কিছু পদ্ধতি আপনাদের সাথে শেয়ার করব। যেগুলোর মাধ্যমে আপনারা অনলাইনে ঘরে বসে মোবাইল দিয়ে অর্থ উপার্জন করতে পারবেন।

গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে অনলাইন থেকে অর্থ উপার্জন করুন

আপনাদের হয়তো মনে প্রশ্ন আসতে পারে, মোবাইল দিয়ে গুগল এডসেন্স দিয়ে কাজ করা যাবে কিনা! অবশ্যই মোবাইল দিয়ে গুগল এডসেন্স এর কাজ করা যাবে। আমি নিজেই ব্যক্তিগতভাবে মোবাইল দিয়েই ব্লগিং করে গুগল এডসেন্স দিয়ে অর্থ উপার্জন করেছি এবং এখনও করতেছি। আমি যে মোবাইল দিয়ে কাজ করে অর্থ উপার্জন করেছি। সে বিষয়ে যদি আপনাদেরকে একটি প্রমাণ দিতে চাই, তাহলে আমার গত মাসের একটি ইনকামের স্ক্রিনশট আমি এখানে দিয়ে দিচ্ছি।

Google Adsense থেকে আয় এর প্রমাণ
Google Adsense থেকে আয় এর প্রমাণ

আমি যে, গুগল অ্যাডসেন্স থেকে কত টাকা ইনকাম করেছি তা দেখুন। এগুলো ছোট একটা বাংলা সাইট থেকে ইনকাম।

ইংরেজি সাইট থেকে Google Adsense দিয়ে কেমন ইনকাম হয় তা একটু দেখবেন?

এটাও একটু দেখে নিন। নিছের ছবিটি দেখুন।

ইংরেজি সাইট থেকে Google Adsense আয়
ইংরেজি সাইট থেকে Google Adsense আয়

তবে এই ক্ষেত্রে আমি সত্যি বলতে অধিকাংশ ওয়েবসাইটে কম্পিউটার দিয়ে কাজ করেছি। কারণ, আমি প্রফেশনালি যেহেতু এই কাজটা শুরু করেছি। এজন্য ল্যাপটপ এবং কম্পিউটার ব্যবহার করে থাকি। কিন্তু এমন না যে, আমি ল্যাপটপ দিয়ে কাজ করলাম এবং কম্পিউটার দিয়ে কাজ করলাম। এজন্য আমার কাজগুলোতে আপনার থেকে ডিফারেন্ট কিছু রয়েছে।

এমন কোন সিক্রেট কৌশল এখানে নেই যেগুলো মোবাইল দিয়ে আপনি করতে পারবেন না। সবকিছুই আপনি মোবাইল দিয়ে ম্যানেজ করতে পারবেন। কিভাবে মোবাইল দিয়ে আপনি একটি ওয়েবসাইট তৈরি করে অর্থ উপার্জন করতে পারেন? সে বিষয়ে ইতিমধ্যে আমরা আমাদের বিডি ব্লগ ওয়েবসাইটে আর্টিকেল প্রকাশ করেছি। যদি সে আর্টিকেলটি আপনি পড়তে চান, তাহলে এখান থেকে পড়ে ফেলতে পারেন। আমরা নিচের লিংকটি যুক্ত করে দিব।

গুগল এডসেন্স থেকে ইনকাম করতে সংক্ষেপে একটু বলে দিচ্ছি।

এটার জন্য কি কি কাজ করতে হবে? সেই বিষয় নিয়ে। প্রথমে আপনাদেরকে একটি ব্লগ ওয়েবসাইট তৈরি করতে হবে। ব্লগ ওয়েবসাইট তৈরি করার পর আপনাকে সে ব্লগে আপনার জানা বিষয়ে বিভিন্ন লিখে পোস্ট করতে হবে। আপনি যেভাবে ফেসবুকে স্ট্যাটাস শেয়ার করেন,,, ঠিক একই রকম ওয়েবসাইটের জন্য আপনাকে কিছু ব্লগ পোস্ট লিখতে হবে।

কিভাবে ব্লগ পোষ্ট লিখতে হয়?

সে বিষয়ে আমরা আপনাদের জন্য একটি গাইডলাইন শেয়ার করবো। যদি আপনার আগ্রহ প্রকাশ করেন এটা জানার জন্য। আপনারা আমাদেরকে কমেন্ট করে আপনাদের আগ্রহ টা জানিয়ে দিতে পারেন। যেন আমরা আপনাদের চাহিদা অনুযায়ী একটি আর্টিকেল রাইটিং এর গাইডলাইন আপনাদের জন্য শেয়ার করতে পারি। একটি ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য আপনাকে হয়তো ৫ থেকে ৭ হাজার টাকা খরচ করতে হবে। এক্ষেত্রে আপনার আশপাশের যদি কোনো ডেভলপার থাকে, তার সাথে যোগাযোগ করে আপনি ৬ থেকে ৭ হাজার টাকা দিয়ে একটি ছোট আমানের ওয়েবসাইট তৈরি করিয়ে নিতে পারেন। ব্লগিং করার জন্য আপনাকে অনেক বড় মানের একটি ওয়েবসাইট তৈরি করতে হবে না। জাস্ট সিম্পল একটি ওয়েবসাইট তৈরি করুন। এখান থেকে আপনি ভাল অর্থ উপার্জন করতে পারবেন।

চাইলে আপনি আমাদের মাধ্যমেই একটি ওয়েবসাইট তৈরি করিয়ে নেওয়ার সার্ভিস গ্রহণ করতে পারেন। এক্ষেত্রে আমাদের কাছ থেকে ওয়েবসাইট তৈরি করিয়ে নিতে সরাসরি আমাদেরকে ফেসবুকে মেসেজ করতে হবে। এবং মেসেজ করার সময় আপনার মূল বিষয়টা অবশ্যই বলে দিবেন। অধিকাংশ মেসেজের রিপ্লাই আমরা করি না। কারণ অনেকেই অযথা মেসেজ করে থাকেন। এক্ষেত্রে আপনি যদি আপনার সার্ভিসের বিষয়টি সহজভাবে উল্লেখ করেন, তাহলে আপনাকে আমরা সার্ভিস দিতে সহজ হবে।

মোবাইল দিয়ে ইউটিউব থেকে অর্থ উপার্জন করুন

এটা অবশ্যই আপনার কাছে মনে হতে পারে হাস্যকর একটি বিষয়। কারণ আপনি এই কাজটি করেন নাই। এজন্য আপনার এটি হাস্যকর মনে হতে পারে। কিন্তু আপনি কি জানেন, মোবাইল দিয়ে একজন প্রফেশনাল ইউটিউবার হিসেবে কাজ করা যায়? এবং একটা ইউটিউব চ্যানেল থেকে প্রতি মাসে ৩০ থেকে ৫০ হাজার টাকার বেশি নতুন একটা ইউটিউব চ্যানেল থেকে অর্থ উপার্জন করা যায়। এই বিষয়ে যদি আপনি না জেনে থাকেন, তাহলে অবশ্যই আপনার এই বিষয়ে জেনে নেওয়া উচিত। কারণ যদি আপনি না জেনে থাকেন, তাহলে আপনি কখনো এটি থেকে অর্থ উপার্জন করতে পারবেন না। এক্ষেত্রে আপনার একটি স্মার্টফোন থাকতে হবে। যেটার মাধ্যমে আপনি ভিডিও তৈরি করতে পারবেন। অনেকের মনে প্রশ্ন থাকতে পারে যে,

আমি কিভাবে ভিডিও তৈরি করব?

আমি তো ক্যামেরার সামনে কথা বলতে পারি না। যদি আপনি ক্যামেরার সামনে কথা বলতে না পারেন, তাহলে কোন সমস্যা নাই। আপনাকে ভিডিও তৈরি করার জন্য ক্যামেরার সামনে এসে কথা বলতে হবে, এমনটা কিন্তু জরুরী নয়। আপনি চাইলেই বিভিন্ন টুলস গুলো ব্যবহার করে অথবা এমন কিছু ভিডিও এডিটর সফটওয়্যার রয়েছে। সেগুলো ব্যবহার করে আপনি খুব সুন্দর ভিডিও তৈরি করতে পারেন।

যেগুলো ইউটিউবে জনপ্রিয় এবং মানুষ এগুলো দেখতে পছন্দ করেন। যদি আপনি এইরকম ভিডিও গুলো তৈরি করা শিখতে চান, তাহলে অবশ্যই আপনাকে আমাদেরকে কমেন্ট করে জানাতে হবে। যেন আমরা পরবর্তীতে এরকম কিছু সফটওয়্যার এবং ভিডিও এডিট করার বিষয়ে আপনাদের কে কিছু টেকনিক শেয়ার করতে পারি। যদি আপনারা আগ্রহী হয়ে থাকেন, তাহলে দ্রুত কমেন্ট করে জানিয়ে দিন।

পরবর্তীতে আমরা এই বিষয়ে লেখার চেষ্টা করব। তবে এই বিষয়গুলো আপনাকে সঠিকভাবে শিখার জন্য ইউটিউবের সাহায্য নিতে হবে। কারণ ইউটিউবে ইতিমধ্যে অনেক ইউটিউবাররা কিভাবে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে ইউটিউব ভিডিও এডিট করতে হয়? ইউটিউব ভিডিও কিভাবে তৈরি করতে হয়? সে বিষয়ে শেয়ার করে ফেলেছে। যেগুলো থেকে আপনি আপনার জ্ঞান অর্জন করেই মোবাইল দিয়ে ইউটিউব শুরু করতে পারেন।

বিডিব্লগের সমাপ্তি বার্তা:


আশাকরি আমরা মোবাইলে অনলাইনে আয় সম্পর্কে আপনাকে সাধারণ ধারণা দিতে পেরেছি।

আরও বিস্তারিত জানার জন্য আমাদের লেখা আরও কিছু ব্লগ পোস্ট পড়ুন।

আপনাদের যতগুলো প্রশ্ন রয়েছে সবগুলো আমাদের জানান। আমরা আপনার অজানা বিষয়গুলো জানতে চেষ্টা করবো।

Advertisement

বাক্সে আপনার মতামত লিখে জানান