জনপ্রিয় কিছু টাকা ইনকাম করার সহজ উপায়

Advertisement

আপনি যদি টাকা ইনকাম করতে চান, তাহলে টাকা ইনকাম করার সহজ উপায় জেনে নিতে আজকের লিখাটি সম্পূর্ণ মনোযোগ দিয়ে পড়ুন। সবাই চাই সহজ পদ্ধতিতে টাকা ইনকাম করার জন্য। কিন্তু কিভাবে সহজ পদ্ধতিতে ইনকাম করা যায়? এ বিষয়ে আমাদের সবার ধারণা না থাকার কারণে। আমরা সহজ পদ্ধতিতে অনলাইন থেকে বা অফলাইন থেকে টাকা উপার্জন করতে পারিনা। আজকে আমরা এমন কিছু পদ্ধতি সম্পর্কে আলোচনা করব। যে পদ্ধতি গুলোর মাধ্যমে আপনি সহজ পদ্ধতিতে টাকা উপার্জন করতে সক্ষম হবেন।

টাকা ইনকাম করার সহজ উপায় –

যে কোন কাজে সফলতা অর্জন করার জন্য আপনাকে কিছুটা পরিশ্রম করতে হবে। কোন কাজে পরিশ্রম ছাড়া সফলতা অর্জন করা সম্ভব নয়। আজকে ও ঠিক একই রকম আমরা কিছু আইডিয়া আপনাদের সাথে শেয়ার করব। যে আইডিয়াগুলো বাস্তবায়ন করে আপনি অর্থ উপার্জন করতে পারবেন। তবে এমন নয় যে, আইডিয়াগুলো বাস্তবায়ন করা পানির মতো সহজ। আমরা এমন কিছু আইডিয়া আপনাদের সাথে শেয়ার করব। যে আইডিয়াগুলো বাস্তবায়ন করা অন্যান্য আইডিয়া থেকে মোটামুটি সহজ হবে।

জব থেকে টাকা ইনকাম করার সহজ উপায়
জটাকা ইনকাম করার সহজ উপায়

কেউ যদি বলেন, টাকা ইনকাম হয়ে যাও! তাহলে টাকা ইনকাম হয়ে যাবে এমন চিন্তা করে থাকেন, তাহলে দয়া করে এই লিখাটি না করে অন্য কোনো লেখা পড়ুন। কিছু আইডিয়া এমন আছে যে আইডিয়াগুলো বাস্তবায়ন করার জন্য আপনাকে কঠোর পরিশ্রম করতে হবে। এবং দীর্ঘ সময় ধরে অপেক্ষা করতে হবে। কিন্তু আজকে আমরা এমন সব আইডিয়া আপনাদের সাথে শেয়ার করব। যে আইডিয়াগুলো আপনি দ্রুত বাস্তবায়ন করতে পারবেন। এবং এখান থেকে টাকা আয় করার জন্য বেশি সময় আপনাকে অপেক্ষা করতে হবে না।

মাইক্রো নিস ব্লগিং করে অনলাইন থেকে টাকা আয় করুন –

মাইক্রোনিশ ব্লগিং হচ্ছে এমন একটি পদ্ধতি। যেখানে আপনি ১০ থেকে ১৫ টির মত আর্টিকেল লিখে ভালো পরিমাণ অর্থ উপার্জন করতে পারবেন। ব্লগিংয়ের মধ্যে বিভিন্ন প্রকারের পার্থক্য রয়েছে। মাইক্রো নিস বলতে যে কোন একটি নির্দিষ্ট বিষয়ের উপরে তথ্যসহকারে ব্লগিং শুরু করাকে বুঝানো হয়। এধরনের ব্লগগুলো একটি নির্দিষ্ট বিষয়ের উপরে করা হয় বলে পাঠকরা এধরনের ওয়েবসাইট গুলো সবচেয়ে বেশি ভিজিট করে থাকে। যদি আপনি কোয়ালিটি কনটেন্ট তৈরি করতে পারেন। তাহলে আপনার ওয়েবসাইটটি ভাইরাল হওয়ার সম্ভাবনাও থাকে এই ধরনের ওয়েবসাইট তৈরি করলেন। 

কয়েকটি জনপ্রিয় মাইক্রো ব্লগিং আইডিয়া –

  • হেলথ ব্লগিং
  • অনুপ্রেরণামূলক
  • কিভাবে
  • সমস্যার সমাধান
  • জনপ্রিয় উক্তি
  • সেলিব্রিটিদের বায়োগ্রাফি
  • রান্নাবান্না
  • অনলাইন থেকে অর্থ উপার্জন
  • টেকনোলজি নিউজ
  • নির্দিষ্ট প্রডাক্ট রিভিউ
  • রূপচর্চায়
  • ব্যবসা বাণিজ্য
  • গানের রিলিক্স ওয়েবসাইট 
  • সুস্বাস্থ্য খাবার রেসিপি, ইত্যাদি।

মাইক্রো নিস ব্লগ থেকে কত টাকা উপার্জন করা সম্ভব?

ব্লগ থেকে অর্থ উপার্জনের বিষয়টি মূলত আপনার ওয়েবসাইটের ট্রাফিক এবং সিপিসির উপরে নির্ভর করে। আপনি যদি মাইক্রো ব্লগিং শুরু করেন এক্ষেত্রে ১০ থেকে ১৫ টি আর্টিকেল আপনাকে লিখতে হবে। এবং এই সকল আর্টিকেল একটি নির্দিষ্ট বিষয়ের সমাধান করতে কাজে দিবে এমন হতে হবে। আপনার টার্গেটেড কিওয়ার্ড এর উপর নির্ভর করে। যেসকল ট্রাফিক পাবেন, তাদের মাধ্যমে আপনি এখান থেকে উপার্জন করতে পারবেন। যদি সিপিসি ভালো হয়, তাহলে প্রতি এক হাজার ভিজিটর থেকে আপনি ৩ থেকে ৫ ডলার ইনকাম করতে পারবেন। যদি আপনার লেখাগুলো ইংরেজিতে হয়ে থাকে, তাহলে ইনকাম এর পরিমাণ আরো বেশি হবে। 

ডাটা এন্ট্রির কাজ করে অনলাইন থেকে অর্থ উপার্জন করুন –

সাধারণত এ ধরনের ডেটা টাইপ এর কাজগুলো যারা একদম নতুন তাদের জন্য সুবিধাজনক। বিভিন্ন কোম্পানির ফ্রীল্যান্স মার্কেটপ্লেস থেকে এ ধরনের ডেটা এন্ট্রির কাজ গুলো পাওয়া যায়। ডাটা এন্ট্রি বলতে বোঝানো হয় অগোছালো বিভিন্ন তথ্যকে গুছিয়ে রাখা। এবং অনলাইন থেকে প্রয়োজনীয় বিভিন্ন তথ্য খুঁজে বের করে তা নির্দিষ্ট জায়গায় সাবমিট করা। কথাগুলো শুনে হয়তো এ ধরনের কাজ গুলো আপনার জরিমানা হতে পারে। কিন্তু এধরনের কাজগুলোকে ও জটিল কোনো বিষয় নয়।

ডাটা এন্ট্রি কাজ হচ্ছে টাকা ইনকাম করার সহজ উপায় – 

এ ধরনের কাজ গুলো করার জন্য আপনার ইন্টারনেট কানেকশন এবং একটি ল্যাপটপ অথবা কম্পিউটার থাকা প্রয়োজন। যদি এই দুইটি জিনিস আপনার কাছে থাকে, তাহলে কোনো অভিজ্ঞতা ছাড়া এ ধরনের কাজ গুলো করতে পারবেন। তবে আপনার যদি কম্পিউটারে টাইপিং স্পিড ভালো হয়ে থাকে, তাহলে এই ধরনের কাজ গুলো আপনার জন্য আরো বেশি সহজ হবে। এ ধরনের ডেটা টাইপ এর কাজগুলো সময়সাপেক্ষ বিষয়। যেহেতু এ ধরনের কাজগুলোতে অতিরিক্ত সময়ের প্রয়োজন হয়। এজন্য সময় বাঁচানোর জন্য বিভিন্ন কোম্পানী ও ব্যক্তি তাদের কাজগুলো অন্যদের দিয়ে করিয়ে নেয়।

কত টাকা আয় করা সম্ভব ডাটা এন্ট্রি জব করে?

সাধারণত এন্ট্রি জব কাজের জন্য ঘন্টা হিসেবে অথবা দিন হিসেবে পেমেন্ট করা হয়ে থাকে। অনেক ক্ষেত্রে দেখা যায় একটি নির্দিষ্ট কাজের জন্য নির্দিষ্ট পরিমাণ স্যালারি প্রদান করা হয়।  নির্দিষ্ট পরিমাণের বিনিময়ে ধরনের কাজগুলো করলে আপনি কাজের উপর নির্ভর করে টাকা নির্ধারণ করে নিবেন। যদি নির্দিষ্ট সময়ের জন্য এ কাজ করার প্রয়োজন হয় এক্ষেত্রে ঘন্টা হিসেবে আপনি প্রতি ঘন্টায় ৩ থেকে ১০ ডলার অথবা প্রতিদিনের জন্য ৫০ থেকে ১০০ ডলার পর্যন্ত চার্জ করতে পারেন। আমার মনে হয় এটি হচ্ছে টাকা ইনকাম করার সহজ উপায়।  আপনার কি মনে হয় তা আমাকে কমেন্টস এর মধ্যে জানিয়ে দিন।

জুস বিক্রি করে অর্থ উপার্জন করুন –

ছোট কোন জায়গায় জুস বিক্রি করার আইডিয়াটা খুবই দারুণ একটি ব্যবসা। আপনার হয়তো মনে হতে পারে এটি একটি জটিল বিষয়। কিন্তু এটি কোন জটিল নয়। বিক্রি করে অর্থ উপার্জন করার জন্য আপনাকে নির্দিষ্ট একটি জায়গা সিলেক্ট করতে হবে। যেমন স্কুল-কলেজের সামনে এ ধরনের ব্যবসা বেশি জনপ্রিয় হয়ে ওঠে। আপনার এলাকায় আপনার কাছের কোন স্কুল বা কলেজ কি আপনি তার গেট করে এই ধরনের ব্যবসা শুরু করতে পারেন। এ ব্যবসায় আপনাকে বেশি পরিশ্রম করতে হবে না। বিভিন্ন ধরনের ফলের রস মেশিনের মাধ্যমে বের করে জুস তৈরি করে বিক্রি করা খুব সহজ কাজ।

জুস বিক্রি টাকা ইনকাম করার সহজ উপায় –

যেহেতু বর্তমান সময়ে মেশিনের মাধ্যমে যেকোনো ধরনের জুস তৈরি করা সম্ভব। সুতরাং এ ধরনের কাজে আপনি কোন রকম পরিশ্রম না করেই পরিপূর্ণ ব্যবসা পরিচালনা করতে পারবেন। তবে এই ধরনের ব্যবসা শুরু করার জন্য আপনাকে প্রাথমিকভাবে কিছু টাকা বিনিয়োগ করতে হবে। ৫০০০ থেকে ১০,০০০ টাকার মধ্যে এ ধরনের ব্যবসা শুরু করা সম্ভব। আপেল, কমলা, আখের রস ইত্যাদি কে চিবিয়ে ব্লেন্ডারে জুস তৈরি করা খুবই সহজ।

 কত টাকা আয় করা সম্ভব জুস বিক্রির ব্যবসা করে?

বিভিন্ন ফলের রস যেহেতু মানুষের স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারী। এই জন্য এই ধরনের রস গুলো খুবই বেশি দামে বিক্রি করা যায়। সাধারণত আপেল, কমলা, ও আখের রস এই ধরনের জুতোগুলো মানুষের কাছে খুবই জনপ্রিয়। এ ধরনের জুস পথে গ্লাস ৩০ থেকে ৪০ টাকার মধ্যে বিক্রয় করা যেতে পারে। তবে ফলের দামের উপর নির্ভর করে জুস এর দাম কম বেশি হতে পারে। প্রতি গ্লাস জুস বিক্রির বিনিময়ে আপনি ৫ থেকে ১০ টাকা পর্যন্ত প্রফিট করতে পারবেন।  জুস বিক্রির আইডিয়াটি টাকা ইনকাম করার সহজ উপায় এবং খুবই লাভজনক একটি ব্যবসা। 

ডোমেইন ব্রোকার হিসেবে কাজ করে টাকা উপার্জন করুন –

যারা অনলাইন ব্রোকার হিসেবে কাজ করেন, তাদের মধ্যে ডোমেইন ব্যবসা হচ্ছে খুবই জনপ্রিয়। ডোমেইন ব্রোকার হিসেবে অনলাইন থেকে অর্থ উপার্জন করার জন্য আপনার ডোমেইন সম্পর্কে ভালো ধারণা থাকতে হবে। যদি ডোমেইন সম্পর্কে আপনার ধারণা না থাকে তাহলে এই ধরনের ব্যবসা শুরু করা উচিত হবেনা। এটি খুবই লাভজনক একটি ব্যবসা। যেখানে আপনাকে কোন রকম পরিশ্রম করতে হবে না। তবে এই ব্যবসাটি করার জন্য আপনাকে বেশ কিছু টাকা বিনিয়োগ করতে হবে। এখানে আমরা যতগুলো আইডি আপনাদের সাথে শেয়ার করেছি তারমধ্যে এটি হচ্ছে টাকা ইনকাম করার সহজ উপায়। 

আপনি যদি টাকা ইনকাম করার সহজ উপায় খুঁজে  থাকেন, তাহলে কোন চিন্তা ছাড়া ডোমেইন ব্রোকার হিসেবে ব্যবসা শুরু করতে পারেন। এখানে পরিশ্রম হিসেবে আপনার মেধাকে কাজে লাগাতে হবে। আপনার মেধা শক্তি আপনাকে এই ব্যবসায় সফলতা এনে দিবে।

কিভাবে শুরু করতে হবে এই ব্যবসা?

এ ব্যবসা শুরু করার জন্য আপনাকে বেশ কিছু টাকা বিনিয়োগ করার জন্য প্রস্তুতি নিতে হবে। আপনার বিনিয়োগকৃত টাকার মাধ্যমে আপনি জনপ্রিয় ডোমেইনগুলো রেজিস্ট্রেশন করে তা রিসেলার হিসেবে যুদ্ধ করে দিবেন। যখন কেউ আপনার রেজিস্ট্রেশন কৃত ডোমেইন ক্রয় করতে চেষ্টা করবে। তখন আপনি মাঝখান থেকে একজন ডোমেইন ব্রোকার হিসেবে পরিচয় দিয়ে উক্ত ডোমেইনটি ক্রয় করে দেওয়ার ব্যবস্থা করে দিবেন। আপনি চাইলে অন্য কোনো ব্যক্তির হয়ে ব্রোকার হিসেবে কাজ করতে পারেন। এক্ষেত্রে আপনাকে নির্দিষ্ট পরিমাণের একটি বেতন বা পার্সেন্টিস নিয়ে সন্তুষ্ট থাকতে হবে। যদি আপনি বেশি পরিমাণে উপার্জন করতে চান তাহলে অবশ্যই আপনাকে ডোমেইন এর জন্য বিনিয়োগ করতে হবে।

কত টাকা আয় করা সম্ভব এই ডোমেইন ব্রোকার বিজনেস থেকে?

আমার জানামতে যতগুলো আইডিয়া আপনাদের সাথে শেয়ার করেছে তার মধ্যে একটি হচ্ছে টাকা ইনকাম করার সহজ উপায় । প্রতিটা ডোমেইন ক্রয় করতে আপনাকে ৫০০ থেকে ৮০০ টাকা বিনিয়োগ করতে হবে। আপনার ডোমেইন এর জনপ্রিয়তার উপর ভিত্তি করে প্রতিটা ডোমেইন চড়া দামে বিক্রি করতে পারবেন। 

একটা ডোমেইন এর মূল্য একেক ধরনের হয়ে থাকে। মূল্য নির্ধারণ করার সম্পূর্ণ আপনার উপরেই নির্ভর করে। ক্রেতাকে যদি বলেন আপনার ডোমেইন বিক্রি করার জন্য আপনি ১০,০০০ ডলার নিবেন। তাহলে সে যদি ১০ হাজার ডলারের রাজি হয়ে যায়। আপনি ১০ হাজার ডলারের বিনিময়ে বিক্রি করতে পারবেন। যত ভালো ডোমেইন আপনি রেজিস্ট্রেশন করতে পারবেন, তত ভালো দামে আপনি ডোমেইনগুলো বিক্রি করতে পারবেন।

টাকা ইনকাম করার সহজ উপায় – 

আশা করছি টাকা ইনকাম করার সহজ উপায় গুলো আপনাদের অবশ্যই ভালো লেগেছে। যদি এই ধরনের আরো কোন আইডিয়া আপনাদের জানার প্রয়োজন হয়ে থাকে, তাহলে আমাদের কমেন্ট করে জানান। পরবর্তীতে আমরা এখানে আরো কতগুলো জনপ্রিয় আইডিয়া আপনাদের জন্য যুদ্ধ করে দিব। যেন আরও একাধিক আইডিয়া ব্যবহার করে আপনারা টাকা ইনকাম করার সহজ উপায় খুঁজে বের করতে পারেন।

Advertisement

বাক্সে আপনার মতামত লিখে জানান